আসুন আইয়ুব বাচ্চুর নাজাতের জন্য কিছু ভাল কাজ করি
আসুন আইয়ুব বাচ্চুর নাজাতের জন্য কিছু ভাল কাজ করি

আসুন আইয়ুব বাচ্চুর নাজাতের জন্য কিছু ভাল কাজ করি

মাহমুদ হাসান সিরাজী


এ দেশের জনপ্রিয় একজন সঙ্গীত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু মারা গেছেন। এতে দেশের যুবসমাজসহ সকল সঙ্গীত প্রেমীরা অনেক কষ্ট পেয়েছেন। আর কষ্ট পাওয়ারই কথা।

একজন আইয়ুব বাচ্চু সত্যিই কতটা জনপ্রিয় ছিলেন আমি জ্যামস নামক আরেকজন শিল্পীর চার মিনিটের নিরব কান্নার একটা বাজনা সম্বলিত ভিডিও দেখে অনুমান করতে পেরে ছিলাম, যা আমাকে আমার অতিপরিচিত একজন দেখিয়েছেন।

মৃত মানুষ সম্পর্কে ভাল ব্যতীত খারাপ কিছু বলব না। তবে মোটা দাগে দু চারটা কথা না বল্লে বিবেক নামক বিচারকের হাতেই মার খেয়ে যাব।

এ আইয়ুব বাচ্চু আমাদের যুব সমাজকে আসলে কি দিয়েছেন? আমাদের যুব সমাজ ওনাকে দিয়ে কতটুকু উপকৃত হতে পেরেছেন?

এখানে সবায়ই বলবে, আসমানের দিকে চেয়ে চিল্লা চিল্লি ছাড়া আর কিছুই না। আমি বলব আরো খারাপ কিছু।
আইয়ুব বাচ্চুরা কনসার্ট করে নিজেদের অর্থভৃত্ত করেছেন এতে কারো সন্দেহ থাকার কথা নয়। আর একটা কনসার্টে যে পরিমান ইয়াবাসহ মাদকদ্রব্য বিক্রয় হয় মাদক ব্যবসায়ীদের একমাসেও তা বিক্রয় হয় না।

এ তথ্য আশা করি সকলেরও জানা থাকার কথা।

তবে আইয়ুব বাচ্চুর একটা বিষয়ে আমি অনেকের নিকট জানতে চেয়েছি যে, তিনি আস্তিক না নাস্তিক? প্রায় সকলে একবাক্যে তাকে আস্তিক বলেছেন। এটা শুনে ও জেনে আমার অনেক ভাল লেগেছে। কেননা তিনি যুবসমাজকে নাস্তিক্যবাদের দিকে ধাপিত করেননি। কেউ কেউ তো বলেছে তিনি না কি নামাজও পড়েছেন। এটাও সস্তিদায়ক সংবাদ।

ভুল তো আমরা সকলেই কম বেশী করে থাকি।আমাদের মহান রব মাফ করে দিলে তাতে কারোই কিছু করার নেই। আমরা বরং রবের দরবারে তার গোনাহ মাফির প্রার্থনা করে হাত উঠাতে পারি।

এখন কথা হল, আমাদের চট্রগ্রামের মেয়রতো ঘোষণাই দিয়েছেন তার জন্য মুসলিম হলের নাম বদলিয়ে আইয়ুব বাচ্চু হল নামকরণ করবেন। এখানে অনেকে অনেক মন্তব্য করতে পারেন। কেউ কেউ মেয়রকে ধুয়েও দিচ্ছেন। আর কেনইবা ধুবে না? পরের মাথায় লবন রেখে বড়ই খাওয়ার মত হল না? সরকারী খরচে সরকারী প্রতিষ্ঠানের ভাল বামটা বদলাবেন কেন?

এখানে আমি মনে করি, আইয়ুব বাচ্চুর জন্য কোনো হলের নাম না বদলিয়ে তার জন্য একটা সেবামুলক ট্রাস্ট গঠন করে এর আওতায় তার নামে প্রতিটি জেলায় একটা করে এয়াতীম খানাসহ সেবামুলক প্রতিষ্ঠান করলে অনেক অনেক ভাল হয়। অথবা আন্জুমানে মফিদুল ইসলামের মত করে বড় একটা সংস্থা করা যেতে পারে। কিংবা মহাখালীর মত করে বড় একটা কলেরা হাসপাতালও করার উদ্দোগ নিতে পারে। এতে তার আত্না শান্তি পাবে। এগুলো তার নাজাতেরও ওসিলা হতে পারে।

এত ফান্ড আসবে কোথায় থেকে? কেন ওনাকে দেখার জন্য যারা অনেক দূর দূর পর্যন্ত গিয়ে ছিলেন ঐসব যুবকদের নিকট দশ টাকা করে চাইলেও অনেক হয়।

এ দেশে কম করে হলেও ওনার এক কোটি ভক্ত আছে। সবায় যদি ওনাকে ভালবেসে মাত্র দশ টাকা করে দান করেন তাহলেও দশ কোটি টাকা হয়ে যাচ্ছে। আর প্রবাসীরা যদি একটু সারা দেন তাহলে তো কোনো কথাই নাই।

সুতরাং ওনি যেহেতু সমালোচনার পরও একজন মুসলমান তাহলে ওনার জন্য অন্য কোনো ইসলামী নাম না কেটে অন্য কোনো ভাল কাজের উদ্দোগ নেওয়া যায় কি না একটু ভাবার দরকার।

প্রিন্সিপাল
জামিয়া ওসমান ইবনে আফফান রা, মাতুয়াইল, ঢাকা


Notice: Undefined index: email in /home/insaf24cp/public_html/wp-content/plugins/simple-social-share/simple-social-share.php on line 74