মাওলানা সামিউল হকের মৃত্যুতে ইমরান খানসহ পাকিস্তানের বিশিষ্ট রাজনীতিবিদদের শোক

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আরিফ মুসতাহসান


পাকিস্তানের বরেণ্য আলেম, রাজনীতিবিদ ও সাবেক পার্লামেন্ট সদস্য মাওলানা সামিউল হকের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের (এফ) সভাপতি মাওলানা ফজলুর রহমান, পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী সরদার উসমান বুজদার ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ সহ আরো অনেকে।

ইমরান খান বলেন, নিসন্দেহে পাকিস্তান একজন গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় নেতা হারিয়েছে। মাওলানা সামিউল হকের ত্যাগ ও অবদান মানুষ সবসময় স্মরণ রাখবে। মাওলানা সামিউল হকের ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

মাওলানা ফজলুর রহমান বলেন, আমি উনার মাদরাসা দারুল উলুম হক্কানীয়াতে ৮ বছর পড়াশোনা করেছি। উনি আমার শ্রদ্ধেয় শিক্ষক। আমি তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ বলেন, দেশের একজন বিশিষ্ট আলেমের এভাবে শহীদ হওয়া বড়ই নিন্দনীয়। এর উপযুক্ত বিচার হওয়া দরকার।

মাওলানা সামিউল হকের ছেলে মাওলানা হামিদুল হক জানান, মরহুমের মৃতদেহ এম্বুলেন্সে করে তাঁর জন্মস্থান খাইবার পাখতুনখোয়ার নওশেরা জেলার আকরাকা খাতকে নেওয়া হয়েছে। সেখানেই তাঁর জানাজা শেষে দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, গতকাল শুক্রবার নিজ বাসায় আততায়ী কর্তৃক ছুড়িকাঘাত ও গুলিবিদ্ধ করে নির্মমভাবে শহীদ করা হয়। তাঁর ছেলে মাওলানা হামিদুল হক জানান, ড্রাইভার ও দেহরক্ষী ঘর থেকে বের হওয়ার পরই এ ঘটনা ঘটে।

মৃত্যুর সময় মাওলানা সামিউল হকের বয়স ছিলো ৮২ বছর। তিনি খাইবার পাখতুনের দারুল উলুম হক্কানীয়া মাদরাসার প্রধান পরিচালক ছিলেন।তিনি জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের(এস) প্রধান ছিলেন। তিনি ১৯৮৫ থেকে ১৯৯৭ পর্যন্ত দুই পর্বে পাকিস্তান সিনেটের সদস্য ছিলেন।

ডন ও ইন্টারন্যাশনাল দ্যা নিউজ অবলম্বনে