মেলান্দহে মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষিত

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

ধর্ষণজামালপুরের মেলান্দহে সিনেমা দেখার প্রলোভন দেখিয়ে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ রবিবার উপজেলা শহরের অন্তরা সিনেমা হলে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় ধর্ষক ফরিদুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ছাত্রীটিকে অসুস্থ অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও ধর্ষিতার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বাগবাড়ি গ্রামের জয়নালের ছেলে ফরিদুল ইসলাম (১৮) হাজরাবাড়ি সিরাজুল হক ডিগ্রি কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্র। একই গ্রামের মৃত আমিনুরের মেয়ে(১২) স্থানীয় বাগবাড়ি প্রাইমারী স্কুলে পড়ত। ফরিদুল মেয়েটিকে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করত। এজন্য স্বজনরা সেখান থেকে তাকে পার্শ্ববর্তী বেলতৈল দাখিল মাদ্রাসায় ৪র্থ শ্রেণিতে ভর্তি করে। ঘটনার দিন দুপুরে ফরিদুল ইসলাম সিনেমা দেখার প্রলোভন দেখিয়ে মাদ্রাসা থেকে ওই ছাত্রীকে মেলান্দহ উপজেলা শহরের অন্তরা সিনেমা হলে নিয়ে যায়। সেখানে ফরিদুল ইসলাম অন্তরা সিনেমা হলে কর্মরত কয়েকজনের সহায়তায় ভয়ভীতি দেখিয়ে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। পরে ওইদিন বিকালে রক্তাক্ত অবস্থায় ধর্ষিতাকে বাড়িতে রেখে ফরিদুল কেটে পড়ে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে এবং পরে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে বেলতৈল দাখিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল আজিজ জানান, ঘটনাটি শুনেছি। তবে ছাত্রীটি ওইদিন মাদ্রাসায় আসেনি এবং ক্লাশ করেনি।

এ প্রসঙ্গে ঘোষেরপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ওবায়দুর রহমান জানান, মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষণের খবর জেনে এলাকাবাসির সহায়তায় ওইদিন রাতেই ধর্ষককে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে মেলান্দহ থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার আব্দুল হালিম জানান, এ ঘটনায় মেলান্দহ থানায় একটি মামলা হয়েছে এবং ঘটনার সাথে জড়িত ফরিদুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে এবং ভিকটমিকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।