ডিসেম্বর ১০, ২০১৬

চট্টগ্রামে সার কারথানায় অ্যামোনিয়া গ্যাস লিকেজ

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

চট্টগ্রামচট্টগ্রাম নগরীর কর্ণফুলী থানার সিইউএফএল সংলগ্ন ডাই অ্যামোনিয়া ফসফেট (ডিএপি) কারখানার গ্যাসলাইনে ত্রুটির কারণে গ্যাস ছড়িয়ে পড়েছে। এতে অ্যামোনিয়া গ্যাস নগরীর আশে পাশে ছড়িয়ে পড়েছে, বেশ কয়েকজন অসুস্থ হয়েছেন বলে জানিয়েছে কর্ণফুলি থানা পুলিশ। ৩৭ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা গেছে সময় টেলিভিশনের এক সংবাদে। ঘটনাস্থলে কাজ করছে চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের চারটি ইউনিট।

সোমবার রাত ১১টার দিকে নগরীর পতেঙ্গা, ইপিজেড, আগ্রাবাদ এলাকায় গ্যাসের কারণে শিশু ও বৃদ্ধরা শ্বাসকষ্টে ভোগেন।

নগর পুলিশের বন্দর জোনের সহকারী কমিশনার জাহিদুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে জানান, ডিএপি কারখানা থেকে অ্যামোনিয়া গ্যাস ছড়িয়েছে। এর ফলে কেউ-কেউ শ্বাসকষ্টে ভুগছেন। সার কারখানার প্রকৌশলীরা কাজ করছেন ত্রুটি সারাতে। তবে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের আগ্রাবাদ নিয়ন্ত্রণ কক্ষের দায়িত্বরত মো. মামুন জানান, পটিয়া, লামারবাজার, নন্দনকানন স্টেশন থেকে চারটি গাড়ি পাঠানো হয়েছে।

ডিএপির একজন কর্মকর্তা জানান, অ্যামোনিয়া গ্যাসে আক্রান্তদের পানিতে ভিনেগার মিশিয়ে খাওয়াতে হবে। চোখে মুখে পানি ছিটাতে হবে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই পঙ্কজ বড়ুয়া জানান, শ্বাসকষ্ট নিয়ে ৪০ জন ভর্তি হয়েছে। এরমধ্যে বেশ কয়েকজন আনসার সদস্যও আছেন।

উল্লেখ্য, অ্যামোনিয়া ঝাঁঝালো গন্ধযুক্ত গ্যাস। সার উৎপাদনে যা গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ হিসাবে ব্যবহৃত হয়।যা  ক্ষারীয় এবং ঝুঁকিপূর্ণ।

কয়েক বছর আগে ব্রাম্মনবাড়িয়ায় অ্যামোনিয়া গ্যাসের প্রভাবে আশে-পাশের গ্রামের লোকগুলোসহ ৪ কিলোমিটার এলাকার মানুষ পশুপাখী ও গাছপালা বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়েছিল।