চট্টগ্রামে সার কারখানায় ট্যাংকে লিকেজ, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে

চট্টগ্রামচট্টগ্রামের আনোয়ারায় কর্ণফুলী নদীর পাড়ে অবস্থিত সার কারখানার একটি প্ল্যান্ট লিকেজ হয়ে ছড়িয়ে পড়া গ্যাস এখন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আছে।

বাতাসে গ্যাস ছড়িয়ে পড়ায় শ্বাসকষ্টে অসুস্থ হয়ে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হওয়া অনেকেই হাসপাতাল ছেড়েছেন। অন্যান্যদের অবস্থাও উন্নতির দিকে।

বিসিআইসি চেয়ারম্যান ও ডিএপির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছেন জানিয়ে তিনি বলেন, পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। পরিদর্শন শেষে বিস্তারিত বলতে পারবো।
গতকাল রাত ১০টার দিকে ডাই অ্যামুনিয়াম ফসফেট ড্যাপ-১ সার কারখানার একটি প্ল্যান্ট লিকেজ হয়ে বাতাসে অ্যামোনিয়া গ্যাস ছড়িয়ে পড়ে। এতে আনোয়ারা ও এর পাশের অনেক এলাকার অর্ধশতাধিক মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েন।

পরে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট গ্যাস নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। গ্যাস নিঃসরণ এবং ছড়িয়ে পড়া বন্ধ করতে পানি ছিটিয়ে দেয় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক জসিম উদ্দিন জানান, সোমবার সন্ধ্যায় সার কারখানার একটি গ্যাসের ট্যাংকে বিস্ফোরণ হয়। এসব গ্যাস রাতে বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। অ্যামোনিয়া গ্যাস আশপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়ায় মানুষের শ্বাসকষ্ট হয় ও শরীরে জ্বালাপোড়া হয়।