জানুয়ারি ২৩, ২০১৭

বক্তব্য দিতে গিয়ে কেঁদে ফেললেন মির্জা ফখরুল (ভিডিও)

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরবিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলগমীর অভিযোগ করেছেন, সরকারের জুলুম-নির্যাতন থেকে বাঁচতে বিএনপির নেতাকর্মীরা এখন হকারি করতে ও রিকশা চালাতে বাধ্য হচ্ছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে ‘আমার দেশ অনলাইনসহ ৩০টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রতিবাদ এবং আমার দেশ পড়তে চাই, মাহমুদুর রহমানের মুক্তি চাই’ শীষর্ক প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশে এখন একনায়কের স্বৈরশাসন চলছে, বিরোধী মতকে দমন করতে রাতের আঁধারে সাদা পোশাকধারীরা ঘর থেকে তুলে নিয়ে যাচ্ছে মানুষ। প্রতিনিয়ত খালি হচ্ছে মায়ের বুক, কোথাও পাওয়া যাচ্ছে না সুবিচার। একপর্যায়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রতিদিন ক্রসফায়ার, একটা, দুটা, তিনটা, চারটা চলছে। যতজনকে সন্দেহজনকভাবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, একটা লোক বেঁচে আছে? সবাইকে আপনার ক্রসফায়ার, গান ব্যাটলের অদ্ভুত সব গল্প, অলীক গল্প তৈরি করে তাদের মেরে ফেলা হয়েছে। সিগন্যালে থামে গাড়ি, হকার ছেলেপেলে, ইয়াং ছেলেপেলে সব আসে, এতে দিতে গিয়েই দেখে বলে যে, স্যার, আমি বিএনপি করতাম লক্ষ্মীপুরে। এত মামলা, পালিয়ে চলে এসেছি, এখন হকারি করছি। রিকশা চালায় আমাদের ছেলেপেলে।’

এই পর্যায়ে কান্নায় ভেঙে পড়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে আমরা আছি। গুম করে দেয়, খুঁজে পাওয়া যায় না। বাচ্চাগুলো এখানে দাঁড়িয়ে (ডেইস) বলল আপনাদের সামনেই।’ তিনি বলেন, ‘আমি দুঃখিত। দেখতে দেখতে আমি খুব আবেগপ্রবণ হয়ে গেছি। বলে যে, বাবার সঙ্গে ঈদ করতে চায়। সেই দেশ এখন। এর জন্য যুদ্ধ করেছিলাম?’

বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক রুহুল আমিন গাজীর সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কবি ফরহাদ মাজহার, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (একাংশ) মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কবি আব্দুল হাই শিকদার, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, সাংবাদিক কাদের গনি চৌধুরী এবং বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল প্রমুখ।