ক্যালিফোর্নিয়ায় হামলাকারী আফগানিস্তানে তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছিলেন

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার একটি নাইট ক্লাবে হামলা চালিয়ে ১২ জন হত্যার ঘটনায় সাবেক নৌ সেনাকে আটক করা হয়েছে।

ইয়ান ডেভিড লং (২৮) নামের ওই ব্যক্তি আফগানিস্তানে তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে একাধিক সম্মাননা অর্জন করেন।

বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লস অ্যাঞ্জেলেসের ৬৫ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের থাউজ্যান্ড ওকের একটি পানশালায় ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি চালায় হামলাকারী।

সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, ২০০৮ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত মেরিন সেনা হিসেবে কর্মরত ছিলেন ২৮ বছর বয়সী ইয়ান ডেভিড লং। ২০১০-১১ সালে আফগানিস্তানে তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে ডেভিড লং অর্জন করেছিলেন ‘মেরিন করপোরাল’, ‘গুড কনডাক্ট মেডেল’, ‘আফগানিস্তান ক্যাম্পেইন মেডেল’ এবং ‘গ্লোবাল ওয়ার টেররিজম সার্ভিস মেডেল’।

মার্কিন পুলিশের দাবি, ‌‘লং মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন। চলতি বছরের এপ্রিলেও এ-সংক্রান্ত চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি। বুধবার মধ্যরাতে ওই পানশালায় দুই শতাধিক মানুষের ভিড় ছিল। তখনই হামলা করেন লং। এতে ১২ জনের প্রাণহানি ঘটে, অন্য ১২ জন গুলিবিদ্ধ হন।’

সাধারণ মানুষ বলছেন, ইয়ান ডেভিড লং মুসলমান না হওয়ায় তাকে ‘মানসিকভাবে অসুস্থ’ দেখানো হচ্ছে। অথচ অন্য ঘটনার ক্ষেত্রে দেখা যায়, হামলাকারি মুসলমান হলে বিচারের আগেই তাকে ‘সন্ত্রাসী’ অ্যাখ্যা দেয়া হয়।