নৌকায় ৮ দল, ধানের শীষে ১১ ও লাঙ্গলে ২

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন জোট নৌকা প্রতীকে ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবদী দল-বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোট ধানের শীষ প্রতীকে আসন্ন একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ভোট যুদ্ধে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আওয়ামী লীগের জোটে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ৮ টি। বিএনপির জোটে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ১১ টি। আর জাতীয় পার্টির  নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ২ টি

আজ ১৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশন-ইসিকে চিঠি দিয়ে প্রধান দুই দল থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী জোটবদ্ধ হয়ে একই প্রতীকে নির্বাচনের বিষয়ে ইসিকে জানানোর শেষ দিন ছিল বৃহস্পতিবার।

আ‘লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার সই করা চিঠিতে মোট ১৫টি দলের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এর মধ্যে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ৮টি। এগুলো হলো- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি, সাম্যবাদী দল, গণতন্ত্রী পার্টি, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপ, তরিকত ফেডারেশন ও জাতীয় পার্টি-জেপি।

অনিবন্ধিত দলগুলো হলো-গণ আজাদী লীগ, গণতান্ত্রিক মজদুর লীগ, কমিউনিস্ট কেন্দ্র, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল, ইসলামী ফ্রন্ট, বাংলাদেশ জাসদ, কৃষক শ্রমিক পার্টি ও তৃণমূল বিএনপি। এছাড়াও বিকল্পধারার নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্ট ইসিকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে, তাদের প্রার্থীরা কুলা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে। তবে ক্ষেত্র বিশেষ কেউ কেউ ‘নৌকা’ প্রতীক নিয়ে লড়বে। এখনও বিষয়টি আলোচনা চলছে।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সই করা চিঠিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ জাতীয়তাবদী দল-বিএনপি,  লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি-এলডিপি, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি-বিজেপি, খেলাফত মজলিস, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, গণফোরাম, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ধানের শীষে ভোট করবে।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারের সই করা চিঠিতে জানানো হয়েছে, তাদের জোটে বাংলাদেশ খেলাফত ও ইসলামী ফ্রন্ট ‘লাঙল’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে।