হাজ্বী আব্দুল ওয়াহহাব রহ.-এর মাগফিরাত কামনায় হাটহাজারী মাদরাসায় দুআ অনুষ্ঠিত

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | হাটহাজারী প্রতিনিধি



বিশ্ব দাওয়াতে তাবলীগের শীর্ষ মুরুব্বী হাজ্বী আব্দুল ওয়াহহাব রহ.এর রুহের মাগফিরাত কামনায় দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসায় দুআ অনুষ্ঠিত হয়েছে৷

১৮ নভেম্বর রবিবার বাদ ইশা মাদরাসার কেন্দ্রীয় বায়তুল করীম জামে মসজিদে সকল ছাত্রদের নিয়ে দুআ পরিচালনা করেন বাংলাদেশের দাওয়াতে তাবলীগের অন্যতম শীর্ষ মুরুব্বী ও হাটহাজারী মাদরাসার মুহাদ্দীস মুফতী মুফতী জসিমুদ্দীন।

দুআ পূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনায় হাজ্বী আব্দুল ওয়াহহাব রহ.এর স্মৃতিচারণ করে মুফতী জসিমুদ্দীন বলেন,হাজ্বী আব্দুল ওয়াহহাব রহ.তাবলীগ জামাতের বানী হজরতজী মাওলানা ইলিয়াস রহ.এর সংশ্রবপ্রাপ্ত মানুষ ছিলেন। হজরতজী ইলিয়াস রহ.সাথে তিনি দাওয়াতে তাবলীগের কাজ করেছেন৷

তিনি আরো বলেন, হাজ্বী সাহেব একেবারে সাদাসিদে জীবন যাপন করতেন। রোজা রেখে শুধুমাত্র স্বল্প টাকার ছোলা দিয়ে তিনি সেহরী সহ পরদিন ইফতারিও করতেন। রাইবেন্ড মার্কাজ পরিচালনার জন্য তিনি কারো নিকট টাকা পয়সা চাইতেন না। বরং কর্জ করে মার্কাজের যাবতীয় খরচ চালাতেন। এবং নিজের টাকা থেকে সেই কর্জ পরিশোধ করতেন। দীর্ঘ পঁচিশ বছর তিনি এভাবেই মার্কাজ পরিচালনা করেছেন।

হাজ্বী আব্দুল ওয়াহহাব রহ.কত উঁচু মাপের আল্লাহর ওলী ছিলেন তা বর্ণনা করতে গিয়ে মুফতী জসিমুদ্দীন আরো বলেন, রাইবেন্ডের এক ইজতেমায় হজরতজী ইউসুফ কান্ধলভী রহ.আসলে রাইবেন্ডের ধর্নাঢ্য ব্যক্তিবর্গরা ইউসুফ কান্ধলভী রহ.এর নিকট নালিশ করলেন যে, হাজ্বী আব্দুল ওয়াহহাব রহ. মার্কাজ পরিচালনার জন্য কর্জ করেন কিন্তু আমাদেরকে কিছু বলেন না। হজরতজী ইউসুফ রহ. হাজ্বী সাহেবকে ডেকে জিজ্ঞাস করলেন যে, রাইবেন্ডের ধর্নাঢ্য ব্যক্তিরা মার্কাজ পরিচালনার জন্য টাকা পয়সা দিতে প্রস্তুত কিন্তু তাদেরকে কিছু বলেননা কেন? জবাবে হাজ্বী আব্দুল ওহাহহাব রহ.বললেন, যাকে বলার দরকার তাকে আমি ঠিকই বলি। অর্থাৎ যা বলার সব আল্লাহ তায়ালাকে বলি।

তিনি আরো বলেন, তাবলীগের বর্তমান সংকট নিরসনে হাজ্বী আব্দুল ওয়াহহাব রহ. বলেছিলেন যে, মাওসানা সাদকে চিল্লায় বের হতে বলো তাহলে সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

মুফতী জসিমুদ্দীন হাজ্বী আব্দুল ওয়াহহাব রহ.এর সঙ্গে নিজের অনেক স্মৃতি তুলে ধরে দীর্ঘ আলোচনা পেশ করেন এবং দুআ পরিচালনা করেন৷এ সময় জামিয়ার অন্যান্য উস্তাদবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।