জানুয়ারি ১৯, ২০১৭

মাদরাসায় হামলাকারীরা বিদেশি জঙ্গিগোষ্ঠীর এজেন্ট হতে পারে

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

আজিজুল হক ইসলামাবাদীচট্টগ্রাম নানুপুর জমিরিয়া ইন্টারন্যশনাল মাদরাসায় হামলাকারীরা বিদেশি কোন গোষ্ঠীগুষ্টির এজেন্ট হতে পারে বলে সন্দেহ করছেন দেশের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী

তিনি প্রশাসনকে বিষয়টি খতিয়ে দেখার অনুরোধ জানান।

আজ দুপুরে তিনি তার ব্যক্তিগত ফেইসবুক পাতায় দেয়া এক স্ট্যাটাসে লিখেন, ‘দেশের প্রখ্যাত বরেণ্য বুজুর্গ, মুরশিদে কামেল হযরত মাওলানা শাহ জমিরুদ্দিন নানুপুরী রহ. এর সুযোগ্য সাহেবজাদা, চট্টগ্রাম নানুপুর জমিরিয়া ইন্টারন্যশনাল মাদরাসার মুহতামিম, মাওলানা বেলাল উদ্দিন সাহেবের ওপর বিদাতী মাইজভান্ডারী জঙ্গিরা কেন বর্বোরচিত আক্রমণ করলো, কেন ছাত্র-শিক্ষকদের ওপর বিনা কারণে হামলা চালিয়ে গুরুতর যখম করলো, এর পেছনে কোনো গভীর ষড়যন্ত্র আছে কি না তা খতিয়ে দেখা দরকার। কারণ- মাওলানা বোলাল একজন বুজুর্গ ব্যক্তি, সহজ সরল সদালাপী মিষ্টবাসী বিনয়ী দরবেশ স্বভাবের লোক।

রাত-দিন ইবাদত বন্দেগী ও জিকির আজকারে ব্যস্ত থাকেন। তার সাথে কারো শত্রুতা থাকার কথা নয়। তার ওপর আক্রমণ কেন?

বিদাতী ভণ্ড সুন্নি নামক এই নব্য জঙ্গি সন্ত্রাসীরা কোনো বিদেশি মোড়লগোষ্ঠী বা কোনো এজেন্সির এজেন্ডা বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে এই ন্যক্কারজনক হামলা করলো কি না তা তদন্ত করে বের করা প্রশাসনের দায়িত্ব?

স্বাধীনতার পর থেকে আজ পর্যন্ত আমাদের দেশে পাকিস্তানের মতো শিয়া-সুন্নি, ওহাবী-লা মাযহাবী, কাদিয়ানী, বেরেলবী-কাদেরী, তালেবান, আল কায়েদা ইত্যাদি গ্রুপভিত্তিক মারামারি, খুনাখুনি, রক্তারক্তির কোনো উল্লেখযোগ্য ঘটনা ঘটেনি।

পাকিস্তানের মতো মারামারি লাগিয়ে অশান্ত, আতংকজনক পরিস্থিতি তৈরি করে সাম্রাজ্যবাদী, ব্রাহ্মণ্যবাদী আগ্রাসী শক্তিকে এনে দেশের সার্বভৌমত্ব বিপন্ন করার ষড়যন্ত্র করছে কি না তাও খতিয়ে দেখার জন্য গোয়েন্দা সংস্থা ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি অনুরোধ করছি।

এদের উদ্দেশ্য খারাপ। এরা মুসলমানদের মধ্যে মারামারি লাগিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলে দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্র বানানোর চক্রান্ত করছে। আমরা দেশের সব ধর্ম-মতের নাগরিক সৌহার্দপূর্ণ শান্ত পরিবেশে বসবাস করছি।

উগ্রতা-সহিংসতার লেশমাত্র আমাদের মধ্যে নেই। এই সুন্দর শান্তিময় পরিবেশ যারা বিনষ্ট করবে তারা দেশের শত্রু, জনগণের শত্রু, মানবতার শত্রু। এই কুচক্রী মহল সম্পর্কে সজাগ, সতর্ক থাকা সকলের কর্তব্য।