ইসলাম রক্ষায় মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: আল্লামা বাবুনগরী

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আরিফ মুসতাহসান


হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব ও দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার সহকারী পরিচালক শাইখুল হাদিস আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী বলেছেন, ইসলাম রক্ষায় মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হওয়া ছাড়া ইসলামকে রক্ষা করা যাবেনা। তিনি বলেন, আল্লাহ তায়ালা কুরআনে বলেছেন মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ হতে। ঐক্যের মূলভিত্তি হবে কুরআন-সুন্নাহ। শুধু কুরআন-সুন্নাহ মানলে ঐক্য থাকবে। অন্যকোনো পন্থায় ঐক্য থাকতে পারেনা।

আজ ৬ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার বাদ মাগরীব হাটহাজারীতে আল আমিন সংস্থার উদ্যোগে আয়োজিত ৩ দিনব্যাপী তাফসীরুল কুরআন ও ক্বেরাত মাহফিলের দ্বিতীয় দিনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

আল্লামা বাবুনগরী আলেম সমাজকে লক্ষ্য করে বলেন, আপনারা ইখতেলাফ করবেন না। আপনারা ইখতেলাফ করলে সাধারণ মানুষ বিভ্রান্ত হবে। পথভ্রষ্ট হবে। আপনারা ঠিক না থাকলে পুরো জাতি নষ্ট হয়ে যাবে। ইসলামের শুরু থেকেই আলেমদের মাঝে কিছু দালাল ছিলো। দালালরা এখনো আছে, তাদের চিহ্নিত করুন! কোনো দালাল যাতে আমাদের মাঝে থাকতে না পারে সেজন্য তাদের বর্জন করুন।

আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী ১ ডিসেম্বর টঙ্গী ইজতেমার মাঠে সা’দপন্থী কর্তৃক জঘন্যতম হামলার প্রতিবাদ করে বলেন, যে ইজতেমার ময়দানে মানুষের অশ্রু ঝরতো আজ সেখানে আলেম-উলামাদের রক্ত ঝরেছে। এরকম হামলা পরিকল্পিত। নিশ্চয়ই এতে ইহুদি চক্রের হাত রয়েছে।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, সা’আদ সাহেব ভিন্ন আক্বীদার মানুষ, যা আমাদের নিকট সুস্পষ্ট। সে কখনো আমীর হতে পারে না। যারা এতকিছু জানার পরও সা’আদের এতাআত করতেছেন আপনারা অন্ধভক্ত। আপনারা ব্যাক্তিপূজা করছেন।

আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ১ ডিসেম্বর যদি প্রশাসনের যথাযথ ভুমিকা থাকতো তাহলে সা’আদ পন্থীরা টঙ্গীতে এমন বর্বরতা চালাতে পারতো না। বিশ্ব ইজতেমা বাংলাদেশের জন্য সৌভাগ্যের বিষয়। এর দ্বারা বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল হয়। তাই প্রশাসনকে বলছি ইজতেমা যেনো যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হয় সে ব্যাবস্থা গ্রহণ করুন।