রাসুল (সা.)-এর পোশাক পরিধানকে মডেল হিসেবে গ্রহণ করেছে পশ্চিমারা!

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট



টাখনুর নিচে কাপড় পড়া জায়েজ নয়। নবী করিম (সা.) নিষেধ করেছেন টাখনুর নিচে কাপড় যেন কেউ না পড়ে। বিশ্ব নবায়নের এ যুগে কাপড় পরিধানে চলে এসেছে প্রতিযোগিতা।

রাসুল (সা.)-এর কাপড় পরিধানের সুন্নত পশ্চিমা দেশে অমুসলমানরা মডেল হিসেবে নিয়েছেন। বিশেষ করে ইতালিতে টাখনুর উপর কাপড় পড়ে ইতালিয়ান তরুন-তরুনীরা ফ্যাশন করছেন।

দীর্ঘ দশ বছর ধরে টাখনুর উপর প্যান্ট পড়া তাদের জন্য আধুনিক যুগের মডেল। কিন্তু মুসলমানদের জন্য এটি পালন করা সুন্নত। যা অনেকের পক্ষে পালন করা সম্ভব হচ্ছেনা। আর পশ্চিমারা তা সাদরে গ্রহন করে মডেল হিসেবে নিয়েছেন।

অথচ রাসুল (সা.) ১৫শ বছর আগে টাখনুর নিচে কাপড় পরিধানে নিষেধ করেছেন।

আধুনিক যুগে এটি ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে ইতালিসহ বিভিন্ন দেশে। ইতালিতে প্রায় দশ বছর ধরে টাখনুর উপর প্যান্ট পড়ছেন ইতালিয়ান উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েরা। বয়সের দিক হিসাব করলে তের থেকে সাতাশ বয়সের যুবকদের মাঝে এ মডেল বিদ্যমান তুলনামূলকভাবে বেশি।

এ বিষয়ে কয়েক জনের সঙ্গে আলাপ হলে তারা বলেন,প্যান্ট টাখনুর উপর পড়া কিভাবে এলো তা জানিনা তবে আমাদের কাছে এটা একটা সুন্দর মডেল। তাই আমরা টাখনুর উপর প্যান্ট পরিধান করতে ভীষন স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। মানুয়েল নামে একজন ইতালিয়ান যুবক বলেন,দশ বছর ধরে টাখনুর উপর প্যান্ট পড়ছি। আমার কাছে খুব ভাল লাগে। এটি আমার কাছে একটি মডেল।

উল্লেখ্য, আমেরিকার একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান থেকে জানা যায়,টাখনুর নিচে কাপড় পরিধানে টেস্টোস্টেরন নামক যৌন হরমোন শুকিয়ে যায়।


ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্স

ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্সদেশের প্রথম ইসলামী ঘরানার অনলাইন পত্রিকা ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকমের আয়োজনে শুরু হতে যাচ্ছে স্বল্পমেয়াদী সাংবাদিকতা কোর্স।অংশগ্রহণ করতে যোগাযোগ করুন এই নাম্বারে-০১৭১৯৫৬৪৬১৬এছাড়াও সরাসরি আসতে পারেন ইনসাফ কার্যালয়ে।ঠিকানা – ৬০/এ পুরানা পল্টন ঢাকা ১০০০।

Posted by insaf24.com on Monday, October 29, 2018


প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনকে বিশ্ববিদ্যালয় বানালেন ইমরান খান
ডিসেম্বর ২২, ২০১৮
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | মুসলিম বিশ্ব ডেস্ক


প্রধানমন্ত্রীর বিলাসবহুল সরকারি বাসভবনকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পূরণ করলেন পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) তিনি ওই বাসভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘ইসলামাবাদ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়’ উদ্বোধন করেন।
এটি বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাস হবে এবং পরে ইন্সটিটিউট, ফ্যাকাল্টি ও বিভাগের জন্য আলাদা ভবন নির্মাণ করা হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ইমরান খান বলেন, শিক্ষা ও মানব উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনকে বিশ্ববিদ্যালয় বানানো হয়েছে। জনগণ ও সরকারের মধ্যে ব্যবধান কমিয়ে আনতে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টি (পিটিআই) সরকার শিক্ষাকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে।

এসময় পিটিআই সরকারের আমলে শিক্ষা খাতে সর্বোচ্চ উন্নয়নের প্রতিশ্রুতিও দেন প্রধানমন্ত্রী। এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চীনা রাষ্ট্রদূতসহ বিদেশি কূটনীতিকরা উপস্থিত ছিলেন।