জানুয়ারি ১৭, ২০১৭

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্যও যত জমি প্রয়োজন দেয়া হবে : শিক্ষামন্ত্রী

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

নুরুল ইসলাম নাহিদজগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য যত জমি প্রয়োজন, তা কেরানীগঞ্জের একটি স্থানেই সরবরাহ করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, আজ সোমবার অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিষয়ে একটি নির্দেশনা দিয়েছেন।

মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকের নিয়মিত এজেন্ডা শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হলের দাবিতে চলমান আন্দোলন এবং সেখানে বিরাজমান সমস্যা নিয়ে অনির্ধারিত আলোচনা শেষে এ সিদ্ধান্ত হয় বলে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জানান।

মন্ত্রিপরিষদ বৈঠক শেষে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ মন্ত্রণালয়ে পৃথক সংবাদ সম্মেলন করেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের এবং বর্তমান ৩০ হাজার শিক্ষার্থীর জন্য যে অবকাঠামো এবং তা গড়ে তুলতে যে পরিমান জমির প্রয়োজন তার কোনোটিই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেই। প্রধানমন্ত্রী চান একটি অখণ্ড জমিতেই পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব অবকাঠামো গড়ে তুলতে। এজন্য যা করা প্রয়োজন তা করার নির্দেশ দেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী কেরানীগঞ্জেই বিদ্যমান ২৫ বিঘা জমির আশেপাশেই প্রয়োজনীয় জমি অধিদগ্রহণ করতে নির্দেশ দেন। ওই ২৫ বিঘা জমির পাশে আরো জমি রয়েছে বলে স্থানীয় এমপিসহ সংশ্লিষ্টদের সাথে তাৎক্ষণিক যোগাযোগ করে জানা গেছে।

মন্ত্রী বলেন, একটি অখণ্ড জমিতেই একাডেমিক ভবন, ল্যাব, লাইব্রেরি, অডিটরিয়াম, ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের জন্য পৃথক আবাসন ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। এসব কাজ রাতারাতিই হয়ে যাবে না। তবে, প্রধানমন্ত্রীর সদিচ্ছা এবং নির্দেশনা ও এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণই বিরাজমান সমস্যাগুলোর অর্ধেক সমাধান হয়েছে বলে মনে করেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষার্থীরা এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাবে বলে মনে করেন শিক্ষামন্ত্রী।

কেরানীগঞ্জে পূর্ণাঙ্গ অবকাঠামো গড়ে ওঠার পর পুরাতন ঢাকায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান অবকাঠামোর কি হবে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিক কোনো সিদ্ধান্ত বলা যাবে না। তবে, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন।