আলোচিত পুলিশ কর্মকর্তা বাবুল আক্তারকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

2016-09-06_18523 (2)আলোচিত পুলিশ কর্মকর্তা বাবুল আক্তারকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ অব্যাহতি দেওয়া হয়।

আজ মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর) স্বাক্ষর করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ২৪তম বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারে যোগদানকৃত মো. বাবুল আক্তার (বিপি-৭৫০৫১০৯০২৯), অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সিএমপি, চট্টগ্রাম (বর্তমানে পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত এবং পুলিশ সদর দফতরে সংযুক্ত) কে তার আবেদনের প্রেক্ষিতে চাকরি (পুলিশ ক্যাডার) হতে এতদ্বারা অব্যাহতি প্রদান করা হলো। জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যার পর অব্যাহতিপত্রে জোর করে স্বাক্ষর নেয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন আলোচিত পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার।

গত ৯ আগস্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বরাবর এ সংক্রান্ত একটি লিখিত আবেদনে এসপি বাবুল বলেন, গত ২৪ জুন পরিস্থিতির শিকার হয়ে অনিচ্ছাকৃতভাবে, বাধ্য হয়ে তাকে চাকরির অব্যাহতিপত্রে স্বাক্ষর করতে হয়।

এ পত্র তিনি স্বেচ্ছায় দাখিল করেননি। এছাড়া গত ৪ আগস্ট পুলিশ সদর দপ্তরে কাজে যোগদানের অনুমতি চেয়েও তিনি আবেদন করেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল একজন কর্মকর্তা বাবুল আক্তারের আবেদনপত্র প্রাপ্তির তথ্য স্বীকার করেছেন।

এর আগে বাবুলের শ্বশুর বলেছেন, চাকরি চলে গেলে বাবুল নিরাপত্তাহীন হয়ে যাবেন। তিনি বিভিন্ন ব্যক্তি ও গোষ্ঠীর আক্রোশের শিকার হতে পারেন।

প্রসঙ্গত, গত ৫ জুন সকালে ছেলেকে স্কুলে নেয়ার পথে চট্টগ্রামের জিইসি মোড় এলাকায় দুর্বৃত্তদের কোপ ও গুলিতে নিহত হন মিতু। এ ঘটনায় তার স্বামী বাবুল আক্তার বাদী হয়ে একটি মামলা করেন।

৫ জুন স্ত্রী মিতু হত্যার পর থেকে সন্তানদের নিয়ে ঢাকায় শ্বশুর বাড়িতেই অবস্থান করছেন বাবুল আক্তার। মামলা তদন্তের এক পর্যায়ে তাকে ওই বাসা থেকে নিয়ে যায় ডিবি পুলিশ। ১৫ ঘণ্টা পর বাড়ি ফেরেন তিনি। তবে এরপর থেকে নিজের কর্মস্থল পুলিশ হেড কোয়ার্টার্সে জাননি বাবুল আক্তার।