আবারো নৌকার বিজয় জরুরী : শেখ হাসিনা

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


নৌকা যখন ক্ষমতায় আসে তখন মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয় জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের মানুষের জীবনমান উন্নয়নে আবারো নৌকার বিজয় জরুরী । তিনি দেশবাসীকে নৌকায় ভোট দিয়ে সেবার সুযোগ দেয়ার আহ্বান জানান।

রোববার (২৩ ডিসেম্বর) দুপুরে রংপুরের তারাগঞ্জে নির্বাচনী জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়েছিল বলেই আজকে স্বাধীনতা পেয়েছে। আর নৌকা যখন ক্ষমতায় আসে তখন মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়।’ ক্ষমতায় এলে উত্তরবঙ্গের প্রতিশ্রুত সব উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পর থেকে আজ পর্যন্ত উত্তরবঙ্গে কোনো মঙ্গা হয়নি।‘ফসল উৎপাদন হচ্ছে। খাবারের ব্যবস্থা আমরা করতে পেরেছি। একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না। আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা মানুষের ঘর-বাড়ি তৈরি করে দিচ্ছি।’


ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্স

ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্সদেশের প্রথম ইসলামী ঘরানার অনলাইন পত্রিকা ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকমের আয়োজনে শুরু হতে যাচ্ছে স্বল্পমেয়াদী সাংবাদিকতা কোর্স।অংশগ্রহণ করতে যোগাযোগ করুন এই নাম্বারে-০১৭১৯৫৬৪৬১৬এছাড়াও সরাসরি আসতে পারেন ইনসাফ কার্যালয়ে।ঠিকানা – ৬০/এ পুরানা পল্টন ঢাকা ১০০০।

Posted by insaf24.com on Monday, October 29, 2018


মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী শ্রমিকরাই সব কাজ করছে: মাহাথির মুহাম্মাদ
ডিসেম্বর ২৩, ২০১৮
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মুহাম্মাদ বলেছেন, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী শ্রমিকের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে। ‌তারা এখানে কেনো? আমরা কাজ করতে চাই না, তাই বাংলাদেশীরাই সব কাজ করছে।

তিনি বলেন, মালয়েশিয়ার লোকজন সাধারণত নোংরা, ঝুঁকিপূর্ণ এবং কঠিন কাজগুলো করতে চায় না। তাই কৃষি এবং নির্মাণ খাত চলে গেছে অভিবাসী শ্রমিকদের কাছে। শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) এক নৈশভোজ অনুষ্ঠানে মাহাথির এসব কথা বলেন।

মাহাথির বলেন, মালয়েশিয়ায় বহু জাতিগোষ্ঠীর বসবাসে আমরা অভ্যস্ত হয়ে উঠেছি। কিন্তু বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, মধ্যপ্রাচ্য, ইরান, মধ্য এশিয়ার লোক বেশি হয়ে গেছে এখানে। আমরা এখন মানুষ দেখলে দ্বিধাগ্রস্ত হয়ে পড়ি। কারণ, আমরা বুঝতেই পারি না কে মালয়েশিয়ার নাগরিক নাকি অন্যকেউ। মালয়েশিয়ানরা যদি নিজের অবস্থান ধরে রাখতে চায়, তাহলে তাদের কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। ভালো শিক্ষা নিতে হবে এবং দেশের সব কাজ করতে হবে।

উল্লেখ্য, এক জরিপ অনুযায়ী মালয়েশিয়ায় মোট কর্মসংস্থানের ১৫ শতাংশই বিদেশি কর্মীদের দখলে। ২০১০ সালে মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিকের সংখ্যা যেখানে ছিল ১৭ লাখ, ২০১৩ সালে তা বেড়ে দাঁড়ায় ২১ লাখে। ২০১৭ সালের হিসাব বলছে, মালয়েশিয়ায় এখন বিদেশি শ্রমিকের সংখ্যা ২২ লাখ।

২০১৫ সালের এক জরিপ অনুযায়ী মালয়েশিয়ায় অভিবাসী শ্রমিক হিসেবে প্রথম অবস্থানে আছে ফিলিপাইন, এরপর আছে নেপাল এবং বাংলাদেশ আছে তৃতীয় অবস্থানে।