মাহমুদুর রহমানের ফাঁসি চাইলেন ড. এমাজউদ্দীন!

emajuddin_4বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেছেন, আমার দে‌শ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রেকর্ড ৭০টি মামলায় জামিন পাওয়ার পরও তাকে মুক্তি দেয়া হয়নি। আরেক‌টি মামলা তার ঘা‌ড়ের উপর চা‌পি‌য়ে দেয়া হ‌য়ে‌ছে। যা কোনো সভ্য দে‌শে হ‌তে পারে না। আর তিনি য‌দি এতোই অন্যায় ক‌রে থা‌কেন তাহ‌লে তা‌কে ফাঁসি‌তে ঝু‌লি‌য়ে মে‌রে ফেলা হোক

শ‌নিবার দুপু‌রে জাতীয় প্রেসক্লা‌বে বাংলা‌দেশ ইয়ূথ ফোরাম আ‌য়ো‌জিত এম‌কে আনোয়ার, মির্জা আব্বাস, মাহমুদুর রহমান, শওকত মাহমুদসহ বি‌শিষ্ট নাগ‌রিক‌দের নিঃশর্ত মু‌ক্তির দা‌বি‌তে নাগ‌রিক প্রতিবাদ সমা‌বে‌শে তিনি এভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এমাজউদ্দীন ব‌লেন, কেউ অন্যায় করলে তার জন্য আইন আছে, বিচার বিভাগ আছে। বি‌রোধী মতাদ‌র্শ দমনের জন্য রাজনী‌তির জন্ম হয়নি। এগু‌লো অগ্রহণযোগ্য। সুনী‌তির সা‌থে যায় না। উন্নত ম‌নের সা‌থে মানায় না। জা‌মিনের পর মাহমুদুর রহমমানের মু‌ক্তি পওয়ার কথা ছিল। হ‌চ্ছে না, তার পিছ‌নে কিছু একটা ষড়যন্ত্র হ‌চ্ছে।

তিনি ব‌লেন, সাম‌নে আওয়ামী লীগ, বিএন‌পি ও জা‌তীয় পা‌র্টির কাউন্সিল হ‌বে। এটা ভাল কথা, কাউন্সিল হ‌লে দলগু‌লোর ম‌ধ্যে নতুন শ‌ক্তি সঞ্চার হ‌বে। নেতৃ‌ত্বে নতুনত্ব আসবে, তা‌দের সবার মান‌সিকতার প‌রিবর্তন হ‌বে।

এমাজউদ্দীন প্রধানমন্ত্রী‌ ও প্রধান বিচরপ‌তি‌কে অনু‌রোধ জা‌নি‌য়ে ব‌লেন, কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবার আগে যারা কারাগা‌রে আছেন তা‌দের মু‌ক্তির ব্যবস্থা করুন।

এসময় বিএনপির স্থায়ী ক‌মিটির সদস্য এমকে আনোয়া‌রের মু‌ক্তি দা‌বি জানান।

খালেদা জিয়ার এই উপদেষ্টা ব‌লেন, তার বিরু‌দ্ধে যেসব অভিযোগ ক‌রা হ‌য়ে‌ছে, তার সা‌থে সেটি মানায় না। আমার বিরু‌দ্ধে য‌দি কেউ গা‌ড়ি পোড়ানোর অভিযোগ ক‌রে, এরআগে আমি আমার মৃত্যু কামনা করব।

নির্বাচন ক‌মিশন‌ প্রসঙ্গে এমাজউদ্দীন ব‌লেন, ইউনিয়ন প‌রিষ‌দের নির্বাচ‌নের আগে সব‌ থে‌কে বে‌শি প্রয়োজন লে‌ভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈ‌রি করা। তা‌তে আপনারা ব্যার্থ।

এসময় তিনি ভারতের নির্বাচন ক‌মিশন‌কে অনুসরণ করার আহ্বান জা‌নিান।

তি‌নি বলেন, ক‌য়েক ধা‌পে নির্বাচন হ‌লেও ফলাফল একই দি‌নে দেয়া উচিত। এতে আন্তর্জা‌তিক মাণদণ্ড বজায় থাক‌বে। ভার‌তে ক‌য়েক‌দি‌নে নির্বাচন হ‌লেও ফলাফল এক‌দি‌নে প্রকাশ করা হয়। এমন ব্যবস্থা না করলে সংঘাত অনিবার্য।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ইয়ুথ ফোরামের সভা‌প‌তি সাইদুর রহমা‌ন, স্বাধীনতা ফোরা‌মের সভাপ‌তি আবু নাসের রহমত উল্লাহ, কল্যাণ পা‌র্টির নেতা সাইদুর রহমান তামান্না ও ওলামা দ‌লের ঢাকা মহানগর দ‌ক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক র‌ফিকুল ইসলাম।