উইঘুর মুসলিমদের ওপর নির্যাতন বন্ধ না হলে চীনা দূতাবাস ঘেরাও করা হবে: যুব মজলিস

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


চীনের উইঘুরে মুসলিম নিধনের ধিক্কার ও নিন্দা জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বংলাদেশ খেলাফত যুব মজলিস ঢাকা মহানগর।

আজ বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) বাদ আসর মুহাম্মাদপুরের আল্লাহ করীম থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে টাউনহলে গিয়ে শেষ হয়।

মিছিল পরবর্তী সমাবেশে যুব মজলিস সভাপতি মাওলানা মুহাম্মাদ মামুনুল হক বলেন, চীনা সরকার উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের উপর ইতিহাসের বর্বরতম নির্যাতন চালাচ্ছে। তারা আশ্রয় শিবির প্রতিষ্ঠা করে সেখানে মুসলিমদের ধর্মান্তরিত করতে বাধ্য করছে। মুসলিম নারীদের রাস্তাঘাটে প্রকাশ্যে হিজাব খুলে লাঞ্চিত করছে। এমনকি মুসলিম নারীদের জোরপূর্বক বৌদ্ধদের সাথে বিবাহ দিয়ে তাদের গর্ভে অমুসলিম সন্তান জন্ম দেয়ার মত অমানবিক কার্যক্রম পরিচালনার সংবাদ প্রকাশ হচ্ছে। অথচ বিশ্বের মুসলিম রাষ্ট্রগুলোর মাধ্যমেই চীনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটছে। এসময় তিনি মুসলিম দেশগুলোর অভিভাবক সংগঠন হিসেবে ওআইসিকে কার্যকর ভূমিকা রাখার আহবান জানান।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ সরকারেরও উচিৎ তাদের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে কঠিন প্রতিবাদ জানানো। অবিলম্বে চীনকে এই নির্যাতন বন্ধ করতে হবে। অন্যথায় চীনা দূতাবাস ঘেরাও করা হবে বলে তিনি হুঁশিয়ারি করেন।

সংগঠনটির মহানগর সভাপতি মাওলানা রাকীবুল ইসলামের নেতৃত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা জহিরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় সমাজকল্যাণ সম্পাদক মাওলানা শরীফ হুসাইন, ঢাকা মহানগর দায়িত্বশীল মাওলানা আব্দুল্লাহ আশরাফ, মাওলানা জাহিদুজ্জামান, মাওলানা রূহুল আমীন মাওলানা মুর্শিদ সিদ্দিকী প্রমুখ।


ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্স

ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্সদেশের প্রথম ইসলামী ঘরানার অনলাইন পত্রিকা ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকমের আয়োজনে শুরু হতে যাচ্ছে স্বল্পমেয়াদী সাংবাদিকতা কোর্স।অংশগ্রহণ করতে যোগাযোগ করুন এই নাম্বারে-০১৭১৯৫৬৪৬১৬এছাড়াও সরাসরি আসতে পারেন ইনসাফ কার্যালয়ে।ঠিকানা – ৬০/এ পুরানা পল্টন ঢাকা ১০০০।

Posted by insaf24.com on Monday, October 29, 2018


মুসলমানদের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র করছে ভারত: আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী
জানুয়ারি ১০, ২০১৯
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন প্রধান, আমীরে শরীয়ত আল্লামা শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী বলেছেন, মুসলিম ছাড়া অন্যসব ধর্মের আশ্রয়প্রার্থীদের নাগরিকত্ব দেয়ার যে বিল ভারতের লোকসভায় পাস হয়েছে, তা ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র। ভারতে হিন্দুত্ববাদী রাম-রাজ্য কায়েম ও সংখ্যালঘূ মুসলমানদের নাগরিকত্ব বাতিলের লক্ষ্যে এ বিল পাস করা হয়েছে। এতেই প্রমাণ হয় ভারত একটি চরম সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র। সে দেশে বার বার মুসলমানরা সাম্প্রদায়িক হামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছে। যার নজির পৃথিবীর কোন দেশে নেই। ভারতে রাম-রাজ্য কায়েমে মুসলমানদের নাগরিকত্ব বাতিলের ষড়যন্ত্র মেনে নেয়া হবে না।

আজ সকালে ঢাকার কামরাঙ্গীর মাদরাসায় ছাত্র-শিক্ষকদের এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এতে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, দলের মহাসচিব মাওলানা হাবীবুল্লাহ মিয়াজী, নায়েবে আমীর মাওলানা হাজী ফারুক আহমদ, শায়খুল হাদিস শেখ আজীমুদ্দীন, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি সুলতান মহিউদ্দীন, দপ্তর সম্পাদক মাওলানা সানাউল্লাহ, মাওলানা সাজেদুর রহমান ফয়েজী, মুফতি আকরাম হুসাইন প্রমূখ।

আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী আরো বলেন, মুসলমানদের পূর্বপুরুষ বৃটিশ আমল থেকেই বংশপরম্পরায় সে দেশের নাগরিক। বৃটিশ খেদাও আন্দোলনে মুসলমানগণ বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছিলেন। কিন্তু আজ আসামসহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্য থেকে মিথ্যা অভিযোগে মুসলমানদের নাগরিকত্ব বাতিল করে তাদেরকে দেশান্তরিত করার ষড়যন্ত্র চলছে। এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে বিশ্ববাসিকে গর্জে উঠতে হবে।
তিনি নিরাপরাধ মুসলমানদের নাগরিকত্ব বহালে বাংলাদেশসহ মুসলিম সরকার প্রধানদেরকে কুটনৈতিক উদ্যোগ গ্রহন করার আহবান জানান।