সকল ছাত্র সংগঠনের অংশগ্রহণে ডাকসু নির্বাচন দিতে হবে: ইশা ছাত্র আন্দোলন | insaf24.com

সকল ছাত্র সংগঠনের অংশগ্রহণে ডাকসু নির্বাচন দিতে হবে: ইশা ছাত্র আন্দোলন

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সাইফুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান আজ বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছেন, ডাকসু নির্বাচনে সকল ছাত্র সংগঠনের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে ঢাবি কর্তৃপক্ষ নিরপেক্ষ ভূমিকা পালনে ব্যার্থ হলে বহুল প্রত্যাশিত ডাকসু নির্বাচন সাধারণ ছাত্রদের নিকট অর্থবহ ও গ্রহণ যোগ্য হবে না। ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ১৯৯১ সালের ২৩ আগষ্ট প্রতিষ্ঠার পর থেকে শুরু করে দেশ প্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বুকে ধারণ করে বাংলাদেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গঠনমূলক রাজনীতি করে যাচ্ছে। কিন্তু দুঃখ ও পরিতাপের বিষয় ঢাবি কর্তৃপক্ষের সাথে একাধিকবার বৈঠক ও যোগাযোগ করার পরেও ডাকসু নির্বাচনে অংশগ্রহনের বিষয়ে আমরাসহ অনেক ছাত্র সংগঠনই এখন পর্যন্ত ইতিবাচক সাড়া পাইনি। আমরা আশাবাদি ঢাবি কর্তৃপক্ষ নির্বাচনকে অংশগ্রহণমূলক ও নিরপেক্ষ করতে ডাকসু নির্বাচনে ইশা ছাত্র আন্দোলন-এর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেবে।

তারা আরো বলেন, দীর্ঘ ২৮ বছরেরও বেশি সময়ের পর আদালতের আদেশের বাধ্যবাধকতাকে সামনে রেখে শেষ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আগামী ৩১ মার্চ’১৯-এর মধ্যে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ নির্বাচনের উদ্দ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। এই নির্বাচন আয়োজন ইতিবাচক এবং এই নির্বাচন দেশের রাজনীতিতে গুণগত পরিবর্তন ও জাতীয় নেতা তৈরীতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমরা আশাবাদি। ডাকসু নির্বাচন জাতীয় নির্বাচনের মতই এই দেশের ছাত্র সমাজের কাছে আগ্রহ ও উৎসবের জায়গা। এই নির্বাচন সুষ্ঠ, অবাধ ও নিরপেক্ষ হওয়া জরুরী। সব ছাত্র সংগঠনের অংশগ্রহণে ডাকসু নির্বাচন দেওয়া সময়ের দাবী।
যদি সব ছাত্র সংগঠনের অংশগ্রহণে অংশগ্রহণমূলক ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনে ঢাবি কর্তৃপক্ষ ব্যার্থ হয়, তাহলে সাধারণ ছাত্র সমাজ এই নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করবে এবং ডাকসু নির্বাচন বাতিলের দাবীতে আন্দোলন গড়ে তুলবে।


ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্স

ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্সদেশের প্রথম ইসলামী ঘরানার অনলাইন পত্রিকা ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকমের আয়োজনে শুরু হতে যাচ্ছে স্বল্পমেয়াদী সাংবাদিকতা কোর্স।অংশগ্রহণ করতে যোগাযোগ করুন এই নাম্বারে-০১৭১৯৫৬৪৬১৬এছাড়াও সরাসরি আসতে পারেন ইনসাফ কার্যালয়ে।ঠিকানা – ৬০/এ পুরানা পল্টন ঢাকা ১০০০।

Posted by insaf24.com on Monday, October 29, 2018


মুসলমানদের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র করছে ভারত: আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী
জানুয়ারি ১০, ২০১৯
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন প্রধান, আমীরে শরীয়ত আল্লামা শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী বলেছেন, মুসলিম ছাড়া অন্যসব ধর্মের আশ্রয়প্রার্থীদের নাগরিকত্ব দেয়ার যে বিল ভারতের লোকসভায় পাস হয়েছে, তা ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র। ভারতে হিন্দুত্ববাদী রাম-রাজ্য কায়েম ও সংখ্যালঘূ মুসলমানদের নাগরিকত্ব বাতিলের লক্ষ্যে এ বিল পাস করা হয়েছে। এতেই প্রমাণ হয় ভারত একটি চরম সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র। সে দেশে বার বার মুসলমানরা সাম্প্রদায়িক হামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছে। যার নজির পৃথিবীর কোন দেশে নেই। ভারতে রাম-রাজ্য কায়েমে মুসলমানদের নাগরিকত্ব বাতিলের ষড়যন্ত্র মেনে নেয়া হবে না।

আজ সকালে ঢাকার কামরাঙ্গীর মাদরাসায় ছাত্র-শিক্ষকদের এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এতে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, দলের মহাসচিব মাওলানা হাবীবুল্লাহ মিয়াজী, নায়েবে আমীর মাওলানা হাজী ফারুক আহমদ, শায়খুল হাদিস শেখ আজীমুদ্দীন, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি সুলতান মহিউদ্দীন, দপ্তর সম্পাদক মাওলানা সানাউল্লাহ, মাওলানা সাজেদুর রহমান ফয়েজী, মুফতি আকরাম হুসাইন প্রমূখ।

আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী আরো বলেন, মুসলমানদের পূর্বপুরুষ বৃটিশ আমল থেকেই বংশপরম্পরায় সে দেশের নাগরিক। বৃটিশ খেদাও আন্দোলনে মুসলমানগণ বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছিলেন। কিন্তু আজ আসামসহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্য থেকে মিথ্যা অভিযোগে মুসলমানদের নাগরিকত্ব বাতিল করে তাদেরকে দেশান্তরিত করার ষড়যন্ত্র চলছে। এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে বিশ্ববাসিকে গর্জে উঠতে হবে।
তিনি নিরাপরাধ মুসলমানদের নাগরিকত্ব বহালে বাংলাদেশসহ মুসলিম সরকার প্রধানদেরকে কুটনৈতিক উদ্যোগ গ্রহন করার আহবান জানান।