চট্টগ্রামে মেরে চিকিৎসকের মাথা ফাটাল পুলিশ!

বাংলাদেশ পুলিশ (2)চট্টগ্রাম নগরের জিইসি মোড় এলাকায় ডা. সানাই প্রু ত্রিপুরা (৪৮) নামে এক চিকিৎসককে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশের বিরুদ্ধে। প্রধানমন্ত্রীর যাত্রাপথের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকা ওই পুলিশ সদস্যের নাম জানা যায়নি।

আজ শনিবার বিকেলে তাকে মারধর করা হয়। সানাই প্রু ত্রিপুরা দি লেপ্রসি মিশন ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এর প্রকল্প ব্যবস্থাপক। ওই পুলিশ সদস্য তাঁর বুকে, পিঠে ও মাথায় কিল ঘুষি ও লাথি মেরেছেন বলে অভিযোগ। এছাড়া বুটের আঘাতে তাঁর মাথায় কানের ওপরে সামান্য ফেটে গেছে। পরে তিনি প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

ডা. ত্রিপুরা বলেন, ‘বিকেল ৪টার দিকে যান চলাচল বন্ধ থাকায় আমি পায়ে হেঁটে খুলশির অফিসে যাচ্ছিলাম। আরো অনেক মানুষ একসঙ্গে হাঁটছিলেন। সোয়া ৪টার দিকে পেনিনসুলা হোটেল পার হওয়ার পর এক পুলিশ এসে আমাকে ধাক্কা দিয়ে বলেন, এখান থেকে সরে যান। আমি সরে যাওয়ার আগেই তিনি আমাকে কিল ঘুষি দেয়া শুরু করেন। পরে আমি ওখানে পড়ে যাই। আমাকে এক দোকানদার টেনে দোকানে ঢুকিয়ে ফেলেন। সেখানে ওই পুলিশ সদস্য ঢুকে আবার আমাকে মাটিতে ফেলে কিল ঘুষি এবং লাথি মারতে শুরু করেন। এতে আমার কানের গোড়ায় মাথা ফেটে যায়।’

পরে সানাই প্রু ত্রিপুরা তাঁর এক চিকিৎসক বন্ধুর চেম্বারে গিয়ে চিকিৎসা নেন বলে জানান তিনি।

সানাই প্রু ত্রিপুরা জানান, তাঁর মাথার কাটা অংশে ব্যান্ডেজ করে দেয়া হয়েছে। তখনো বুকে ব্যথা অনুভব করছিলেন। তিনি নিজেকে চিকিৎসক পরিচয় দেয়ার পরও তাঁকে ওই পুলিশ বেদমভাবে মেরেছেন বলে অভিযোগ করেন। তবে তিনি ওই পুলিশ সদস্যের নামটা দেখতে পারেননি।

এই ঘটনার ১০ মিনিট পরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়িবহর কুয়াইশ থেকে জিইসি এলাকা অতিক্রম করে। এরপর ওই চিকিৎসক তাঁর এক পুলিশ স্বজনের মাধ্যমে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানা-পুলিশকে অবহিত করেন। রাতে ডা. সানাই ত্রিপুরার বাসায় চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজিজ আহমেদ তাঁকে দেখতে যান।

জানতে চাইলে ওসি আজিজ আহমেদ জানান, ‘এই ঘটনা শুনে আমি তাঁকে দেখতে বাসায় যাই। তবে কোন পুলিশ এমন ঘটনা ঘটিয়েছে তা বলতে পারছি না। প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর আসার আগ মুহূর্তে নিরাপত্তার খাতিরে মানুষজনকে সরিয়ে দেয়ার সময় উনাকে (চিকিৎসক) লাঞ্ছিত করা হয়েছে বলে শুনেছি। আমি তখন জিইসি মোড়ের অন্যপাশে দায়িত্ব পালন করছিলাম। তবে বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি।’