ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব নারীদের জন্যই হিজাব নিরাপত্তা ও সম্মানের প্রতীক

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


‘হিজাব আমার স্বাধীনতা, হিজাব আমার নিরাপত্তা, হিজাব আমার পছন্দ, হিজাব আমার আচ্ছাদন’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে বিশ্বের অন্তত ১৪০টি দেশের মুসলিম-অমুসলিম নারীদের অংশগ্রহণে পালিত হয়েছে এবারের ‘ওয়ার্ল্ড হিজাব ডে’। দিবসটি সব নারীকে এ কথাই মনে করিয়ে দেয় যে, হিজাব শুধু মুসলিমরাই পরবে এমনটি নয়, বরং ধর্ম – বর্ণ নির্বিশেষে সব নারীদের জন্যই হিজাব নিরাপত্তা ও সম্মানের প্রতীক, যা ব্যবহারে নারী থাকে নিরাপদ।

ফেসবুক ও টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধমের দ্বারাই এ দিবসটির চেতনা বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, জার্মানির মতো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশেও এবার ১লা ফেব্রুয়ারি, ওয়ার্ল্ড হিজাব ডে বা বিশ্ব হিজাব দিবস পালিত হয়েছে। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও প্রথমবারের মত বিশ্ব হিজাব দিবস পালন করেছে ছাত্রীরা। দিবসটি উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের শ্রেণীকক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

গত শুক্রবার আয়ারল্যান্ডের মুসলিম নারীরা ব্যতিক্রমী আয়োজনে সপ্তম বিশ্ব হিজাব দিবস পালন করেন। ডাবলিন শহরের পোর্টবেলো অঞ্চলের একটি হোটেলে হিজাব দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বেশির ভাগ নারীরা রঙবেরঙের জিলবাব এবং বৈচিত্র্যপূর্ণ হিজাব পরিধান করে অংশ গ্রহন করেন।

বিশ্ব হিজাব দিবসের অনুষ্ঠানে আগত ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের গোলাপি হিজাব ও ফুল দিয়ে স্বাগত জানানো হয়। তবে তাদের কেউই পূর্ণাঙ্গ শরিয়া মুতাবেক নেকাব বা এমন পর্দা, যা পুরো মুখমণ্ডল ঢেকে রাখে এমন হিজাব পরিধান করেননি।

হিজাব দিবস পালিত হয় দক্ষিণ আফ্রিকায়ও। এবার দেশটির রাজধানী প্রিটোরিয়াতে উদযাপন করা হয় বিশ্ব হিজাব দিবস। বহু সংস্কৃতির দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার নাগরিকরা কোনো বৈষম্য ছাড়াই ধর্মীয় স্বাধীনতা ভোগ করছেন। বিশ্বের অন্যান্য দেশে মুসলমান নারীরা প্রায়ই মাথায় স্কার্প পরিধানের কারণে বৈষম্যের শিকার হলেও দক্ষিণ আফ্রিকায় এমনটি কখনো হয়না বলে জানান এ সম্প্রদায়ের সদস্যরা।

উল্লেখ্য, ‘বিশ্ব হিজাব দিবস’ উদযাপনের উদ্যোগটা প্রথমে আসে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত নিউইয়র্কের বাসিন্দা নাজমা খান নামে এক নারীর মনে। প্রথম বারের মতো ২০১৩ সালের ১ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, পাকিস্তান, ফ্রান্স ও জার্মানিসহ বিশ্বের ৪৫টি দেশের দেশের নারীরা হিজাব দিবস পালন করেছিল।



ঢাকার যেসব স্থানে পাওয়া যাচ্ছে হেফাজত নিয়ে প্রকাশিত ইনসাফের বিশেষ সাময়িকী

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


ঢাকার বিভিন্ন স্থানে পাওয়া যাচ্ছে দেশের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ-এর ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ১০ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষ্যে ইসলামী ঘরানার অনলাইম পত্রিকা ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম প্রকাশিত বিশেষ সাময়িকী (প্রিন্ট ভার্সন)।

৪ পৃষ্ঠার বিশেষ সাময়িকীতে হেফাজতের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী নিয়ে রয়েছে বিশেষ প্রতিবেদন ‘১০ম বর্ষে হেফাজত’। প্রতিবেদনটিতে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাকালীন প্রেক্ষাপট থেকে শুরু করে নামকরণ, নেতৃত্ব, প্রথম কর্মসূচী, প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় মহাসচিবের দায়িত্বকাল, ২০১৩ সালের ইসলামবিদ্বেষী শক্তির বিরুদ্ধে রাজপথে নেমে আসার প্রেক্ষাপট বর্ণনা করা হয়েছে।

এছাড়াও রয়েছে হেফাজতের আমীর আল্লাম শাহ আহমদ শফী’র সাক্ষাৎকার। সাক্ষাৎকারে তিনি হেফাজতের প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে শুরু করে বর্তমান সময়ে তাঁকে নিয়ে উঠা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন।

হেফাজতের সাফল্য-ব্যর্থতা নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদনে কথা বলেছেন সংগঠনের মহাসচিব শাইখুল হাদিস আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী। তিনি বর্ণনা করেছেন ৯ বছরে হেফাজতের সফলতা-সহ বিভিন্ন দিক।

অন্যান্য সংবাদের পাশাপাশি শেষ পৃষ্ঠায় রয়েছে মিডিয়া ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মাওলানা সালাহ উদ্দীন জাহাঙ্গীরকে নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন।


যেসব স্থানে পাওয়া যাচ্ছে

ইনসাফ কার্যালয়
৬০/এ পুরানা পল্টন (৪র্থ তলা), ঢাকা ১০০০।
মোবাইলঃ ০১৭১৯৫৬৪৬১৬

আশরাফিয়া লাইব্রেরী
হাবিব সুপার মার্কেট, রোড-৩, প্লট-১৩, মিরপুর-১০, ঢাকা-১২১৬।
মোবাইলঃ০১৭২৮৯৬৫৬৬৮,০১৬৬৬৩৬৯৫৫০

রাহমানিয়া লাইব্রেরী এন্ড স্টেশনারী
৭৩, সাত মসজিদ সুপার মার্কেট, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭।
মোবাইল: ০১৮৪০৯৯৪৮১৬,০১৬১৬৮৮২৪০৯

মাকতাবাতুল আযহার
৩৪,৩৫,৩৬ যাত্রাবাড়ী মাদরাসা কিতাব মার্কেট, কুতুবখালী, ঢাকা।
মোবাইল:০১৯৭৫০২৩১১৮,০১৯১০০৪৮৬৮২

মাকতাবাতুর রহমান
২৫, যাত্রাবাড়ী মাদরাসা কিতাব মার্কেট, কুতুবখালী, ঢাকা-১২০৪।
মোবাইল:০১৯২০৮১৮৫৭০,১৭৩১১৮৮৭০১

মাকতাবাতুন নূর
১১/১ ইসলামী টাওয়ার ২য় তলা, বাংলাবাজার,ঢাকা।
মোবাইল: ০১৮৫৭-১৮৯১৪৪,০১৯৭১-৯৬০০৭১

মাকতাবাতুত তুল্লাব
ফরিদাবাদ মাদরাসা মার্কেট ২য় তলা ঢাকা।
মোবাইল: ০১৯১২১৭৫৩১৭

মাকতাবাতুত দাওয়া
উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টর লেকের দক্ষিণ দিকে। বাড়ি : ৫, রোড : ১১/এ।
মোবাইল: ০১৭৫৫৫৬৯৯৬৪, ০১৭৪৫৮৯৯৩৪৭

মাকতাবায়ে কাসেমী
আরজাবাদ, হরিরামপুর, মিরপুর১।

হক লাইব্রেরী
বিআরটিসি বাস ডিপু সংলগ্ন হক সুপার মার্কেট টেকনগ পাড়া, গাজীপুর।
মোবাইল:  ০১৯২০৮০৯৫৭৬