আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে অফিস চালু করার প্রস্তাব পেয়েছে তালেবান

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | বেলায়েত হুসাইন


আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে অফিস চালু করার প্রস্তাব পেয়েছে তালেবান।

রবিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) দেশটির প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানী তালেবানের নিকট এ প্রস্তাব পেশ করেন।

প্রস্তাবে বলা হয়, ১৮ বছরের চলমান যুদ্ধ বন্ধে এবং শান্তি ফিরিয়ে আনতে তালেবানকে এই মর্মে প্রস্তাব পেশ করা হয়েছে,হয়তো রাজধানী কাবুলে কিংবা অন্য দুটি শহরের যেকোনো এক জায়গায় তারা অফিস চালু করতে পারবে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম তুলুউ-নিউজ প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানীর কথা উল্লেখ করে বলে, তিনি বলেছেন,আফগানিস্তান সরকার তালেবানকে অফিস চালু করার সুযোগ দিতে প্রস্তুত। তবে তাদের অফিসের জন্য কাবুলকে বেছে নিতে হবে অথবা কান্দাহার কিংবা নঙ্গরহারেও তারা যেতে পারে।

তিনি আরো বলেন, দেশে স্থায়ী শান্তি ও সম্মানের সাথে নিরাপত্তার বিষয় নিশ্চিত করার জন্য তালেবানকে এ প্রস্তাব পেশ করা হয়েছে।



ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্স

ইনসাফ সাংবাদিকতা কোর্সদেশের প্রথম ইসলামী ঘরানার অনলাইন পত্রিকা ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকমের আয়োজনে শুরু হতে যাচ্ছে স্বল্পমেয়াদী সাংবাদিকতা কোর্স।অংশগ্রহণ করতে যোগাযোগ করুন এই নাম্বারে-০১৭১৯৫৬৪৬১৬এছাড়াও সরাসরি আসতে পারেন ইনসাফ কার্যালয়ে।ঠিকানা – ৬০/এ পুরানা পল্টন ঢাকা ১০০০।

Posted by insaf24.com on Monday, October 29, 2018


আফগান যুদ্ধে বিজয়ী হয়েছে তালেবান : স্বীকার করলেন সাবেক মার্কিন জেনারেল
ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০১৯
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | মুসলিম বিশ্ব ডেস্ক


আফগানিস্তানের যুদ্ধে তালেবান বিজয়ী হয়েছে বলে খোলামেলা ভাবে স্বীকার করেছেন মার্কিন কমান্ডো বাহিনী স্পেশাল ফোর্সেসের সাবেক কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডন বোল্ডাক। তিনি আরো বলেন, তালেবানের কাছে পরাজিত হওয়ার বিষয়টি এখনো আমেরিকা বুঝে উঠতে পারে নি।

আফগানিস্তানে মোতায়েন থাকা অবস্থায় পাঁচ বছরে তার বাহিনীর ৬৯ কমান্ডো নিহত হয়েছে। ‘ডগ ট্যাগ’ নামে পরিচিত নিহত সেনাদের পরিচয় চিহ্ন নিজ সংগ্রহে রেখেছেন সাবেক জেনারেল বোল্ডাক।

মার্কিন বাজে নীতি এবং ভুল কৌশলের কি রকম চড়া মূল্য মার্কিন সেনাদের দিতে হয়েছে তা স্মরণ করার জন্য নিহত সেনাদের পরিচয় চিহ্ন নিজের কাছে রেখেছেন বলেও জানান তিনি।

মার্কিন কমান্ডোদের যে নির্দেশ দেয়া হয়েছে তা পালন করেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। সঠিক ভাবে নির্দেশ পালন করেছে মার্কিন স্পেশাল ফোর্সেসের সেনারা এবং এটি করতে যেয়ে তাদের প্রাণ দিতে হয়েছে। তাদের অঙ্গহানি ঘটেছে। আর এ সবই ঘটেছে মার্কিন নীতি নির্ধারক এবং শীর্ষস্থানীয় সেনা নেতৃবৃন্দের ব্যর্থতার কারণে।

আরেক সাবেক মার্কিন সেনা কমান্ডার মেজর জেনারেল জেফ স্কলোসার বলেন, আফগানিস্তানে তার বাহিনীর ১৮৪ সেনা নিহত হয়েছে। ২০০৮ থেকে ২০০৯ সালে মাঝামাঝি পর্যন্ত আফগানিস্তানে মোতায়েন ১০১তম এয়ারবোর্ন ডিভিশনের নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি।