কাদিয়ানী সম্মেলন বন্ধ না করলে আমি পঞ্চগড়ে গিয়ে আন্দোলনে শরীক হবো : আল্লামা শফী

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


পঞ্চগড়ে কাদিয়ানীদের তিন দিনব্যাপী তথাকথিত ইজতেমা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর ও আর্ন্তজাতিক মজলিসে তাহাফফুজে খতমে নবুওয়ত বাংলাদেশ-এর আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

আজ এক বিবৃতিতে আল্লামা শফী বলেন, অবিলম্বে কাদিয়ানীদের এই সম্মেলন বন্ধ করতে হবে। তা না হলে আমি নিজে গিয়ে পঞ্চগড়ে আন্দোলনে শরীক হব।

এছাড়াও বিবৃতিতে দিয়ে কাদিয়ানীদের সম্মেলন বন্ধ করে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন হেফাজত আমির।

বিবৃতিতে হেফাজত আমির বলেন, কাদিয়ানীদের এই সম্মেলন অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। এ ব্যাপারে যারা আন্দোলন করছে তাদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করছি। কাদিয়ানীদের এ সম্মেলন বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত সর্বাত্মক আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার জন্যে সর্বস্তরের মুসলমানদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। যদি এ সম্মেলন বন্ধ করা না হয় প্রয়োজনে আমি পঞ্চগড়ে গিয়ে আন্দোলনে শরিক হব।

কাদিয়ানীরা পাঞ্জাবের মির্জা গোলাম আহমদ কাদিয়ানীকে নতুন নবী মানে এমনটা দাবি করে বিবৃতিতে আল্লামা শফী বলেন, মহানবী হজরত মুহাম্মদ (স.)-কে সর্বশেষ নবী মানে না। তাই তারা নিশ্চিতভাবে কাফের। অথচ তারা নিজেদেরকে আহমদিয়া মুসলিম পরিচয় দিয়ে সাধারণ মুসলমানদের সঙ্গে প্রতারণা করে। এরই অংশ হলো- পঞ্চগড়ে তিন দিনব্যাপী (২২, ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি) কাদিয়ানী সম্মেলন।

তিনি আরও বলেন, খতমে নবুওয়াতের বরকতময় আন্দোলন যারা করছেন, তারাসহ সব দ্বীনি আন্দোলনের নেতাকর্মীদের কালবিলম্ব না করে পঞ্চগড় গিয়ে প্রিয় নবীজির খতমে নবুওয়াতের চিরশত্রু কাফের কাদিয়ানীদের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানাচ্ছি।


আগামীকাল পঞ্চগড়ে কাদিয়ানীদের ইজতেমা বন্ধের দাবিতে ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল
ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


মানবতার মুক্তির দূত মহানবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে শেষ নবী হিসেবে অস্বীকারকারী কাদিয়ানী সম্প্রদায়ের ঘোষিত তথাকথিত জাতীয় ইজতেমা বন্ধের দাবিতে আগামীকাল (১৩ ফেব্রুয়ারী) জাতীয় মসজিদ বাইতুল মোকাররমসহ সারা দেশে বিক্ষোভ মিছিল করবে আর্ন্তজাতিক মজলিসে তাহাফফুজে খতমে নবুওয়ত বাংলাদেশ।

বিক্ষোভ কর্মসূচী পালনে ইতিমধ্যেই ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে অরাজনৈতিক এই সংগঠনটি।

ইনসাফের সাথে আলাপকালে সংগঠনটির মহাসচিব মাওলানা নূরুল ইসলাম জানান, মূলত শুক্রবার বিক্ষোভ মিছিলের প্রস্তুতি থাকলেও বিশ্ব ইজতেমার কারনে এটিকে আগামীকাল বুধবার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তিনি জানান, ইতিমধ্যেই ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে বিক্ষোভ মিছিল সফল করতে। ঢাকার প্রধান বিক্ষোভ মিছিলটি হবে জাতীয় মসজিদ বাইতুল মোকাররমের উত্তর গেইটে। বিকেল ৩টা থেকে শুরু হবে।

তিনি দেশবাসীকে ঈমানি দায়িত্ববোধ থেকে বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহণের আহবান জানান।