ভারতকে ঘৃণা করে এমন দেশের তালিকায় বাংলাদেশ দ্বিতীয়!

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

বাংলাদেশ-ভারতভারতকে অপছন্দ করা দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান নাকি দ্বিতীয়! এমনটাই এক প্রতিবেদনে দাবি করেছে দেশটির সংবাদ মাধ্যম ইন্ডিয়া টাইমসের বাংলা ভার্সন এই সময়।

এই সময়ের প্রতিবেদনটিতে দশটি দেশের তালিকা দেয়া হয়েছে, এর মধ্যে পাঁচটি ভারতের বন্ধু দেশ আর পাঁচটির সাথে ভারতের বৈরি সম্পর্ক রয়েছে।

স্বাভাবিক ভাবেই বৈরি সম্পর্ক রয়েছে এমন তালিকার প্রথমেই রয়েছে পাকিস্তান। কিন্তু অবাক করা বিষয় হচ্ছে দ্বিতীয় স্থানেই তারা উল্লেখ করেছে বাংলাদেশের নাম। যদিও বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, ভারত বাংলাদেশের ‘পরিক্ষিত বন্ধু’।

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকমের পাঠকদের জন্য ‘এই সময়’-এর প্রতিবেদনে প্রকাশিত তালিকাটি তুলে ধরা হলো-


ভারতের সঙ্গে বৈরিতার সম্পর্ক রয়েছে, এমন পাঁচ দেশ


১. পাকিস্তান: এই তালিকায় পাকিস্তানকে এক নম্বরে রাখার মধ্যে কোনও আশ্চর্য নেই। পাকিস্তান রাষ্ট্র সৃষ্টির দিক থেকেই ভারতের বিরোধিতা ও ক্ষতি করার চেষ্টাই এর একমাত্র লক্ষ্য।

২. বাংলাদেশ: ভারতের ক্ষুদ্র এই প্রতিবেশী রাষ্ট্রেরও ধারণা যে ভারত তাদের উন্নয়নে বাধা দিচ্ছে। যদিও ভারত বিভিন্ন সময় বারবার বাংলাদেশের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে, তবু ভারতের প্রতি তাদের তিক্ত মনোভাব বদলায়নি।

৩. শ্রীলঙ্কা: সিংহলিরা তামিলদের মোটেও পছন্দ করে না। সেই কারণেই তাদের রাগ গিয়ে পড়ে গোটা ভারতের ওপর। পাশাপাশি, শ্রীলঙ্কার ধারণা ভারত তাদের উন্নয়নে বাধা সৃষ্টি করছে। শ্রীলঙ্কায় বহু তামিলকে প্রাণ দিতে হয়েছে।

৪. চিন: ভারতের এই প্রতিবেশী রাষ্ট্র গত ২০ বছরে আমাদের প্রতি তার আচরণে বারবার বদল এনেছে। চিন ও ভারত দুই দেশই উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। চিন শিল্পক্ষেত্রে বেশ কিছুটা এগিয়ে গিয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ায় নিজের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বীকে মোটেও পছন্দ করে না চিন।

৫. অস্ট্রেলিয়া: ভারতের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার তিক্ত সম্পর্ক সম্প্রতি শুরু হয়েছে। চাকরির বাজারে প্রতিযোগিতার কারণে সাধারণত অস্ট্রেলিয়ানরা ভারতীয়দের পছন্দ করে না। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ভারতীয় অজিদের হাত থেকে নিজেদের দক্ষতায় চাকরি ছিনিয়ে নিচ্ছে। এটা মোটেই ওরা পছন্দ করে না।


ভারতের সঙ্গে প্রীতির সম্পর্ক রয়েছে, এমন পাঁচ দেশ


৫. আমেরিকা: আমেরিকার প্রয়োজন কর্মপটু বুদ্ধিদীপ্ত মানব সম্পদ, যারা সস্তায় কাজ করবে। সেই কারণেই ভারতকে পছন্দ আমেরিকার। পরিস্কার করে বলতে গেলে ভারতের বিশাল চাকরির বাজারকে ব্যবহার করছে আমেরিকা। এর ফলে দেশে আর্থিক সাহায্য হলেও উন্নত ব্রেন দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে।

৪. ইংল্যান্ড: ভারতের এক সময়ের শত্রুর সঙ্গে এখন সম্পর্কের রসায়নটা বদলে গিয়েছে। সে দেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা মানুষজন আদতে ভারতীয়। এছাড়া ইংল্যান্ডের ডাক্তারদের একটা বড় অংশ ভারতীয়। ইংল্যান্ডের প্রায় সব নাগরিক মহাত্মা গান্ধি সম্পর্কে জানেন এবং ভারতের প্রতি তাঁদের শ্রদ্ধাবোধ আছে।

৩. সিঙ্গাপোর: এই আয়তনে ছোট কিন্তু আর্থিক ভাবে বলশালী দেশ ভারতের সত্যিকারের বন্ধু। প্রযুক্তিগত ও অর্থনৈতিক ভাবে বারবার ভারতকে সাহায্য করেছে সিঙ্গাপোর।

৪. জাপান: এই ইলেকট্রনিক গুরুর ভারতের সঙ্গে একটা বিশেষ সম্পর্ক রয়েছে। এ দেশে বহু জাপানি কোম্পানি কাজ করছে। ভারতের দিকে বারবার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে জাপান।

৫. রাশিয়া: শত্রুর শত্রু আমার বন্ধু। কার্গিল যুদ্ধের সময় যখন আমেরিকা পাকিস্তানকে সাহায্য করে, তখন নানা ভাবে ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল পাকিস্তান। যদিও আমেরিকার সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক বর্তমানে বেশ ভালো, তবু রাশিয়াই এখনও পর্যন্ত আমাদের সবচেয়ে ভালো বন্ধু।