নিউইয়র্কে বাংলাদেশীদের মসজিদ উদ্বোধন

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

আবু তাহের সিদ্দিকী


24442631180_n

নিউইয়র্কের ওজনপার্কে বাংলাদেশীদের বহু প্রতীক্ষিত বায়তুন নূর মসজিদ এন্ড ইসলামিক সেন্টারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। মসজিদ ভরপুর মুসল্লী আর আমন্ত্রিত অতিথিদের যথাযথ উপস্থিতি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে ব্যতিক্রমীধর্মী ও প্রাণচঞ্চল করে তুলেছিল।

গতকাল রবিবার আন নূর কালচারাল সেন্টার জ্যাকসন হাইটস এর প্রিন্সিপাল মুফতি মুহাম্মাদ ইসমাইল নূরীর ইমামতিতে মাগরিবের নামযের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন হয় মসজিদটির।

এর পূর্বে বি আই সির সম্মানিত ইমাম মাওলানা ক্বারী জোনায়েদ আহমদ এর সুললিত কন্ঠে পবিত্র কালামুল্লাহর তেলাওয়াতের মধ্যে দিয়ে শুরু উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মুনা নিউইয়র্ক জোন এর প্রেসিডেন্ট, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ জনাব আহমদ আবু উবায়দা। মুহাম্মদ ইমদাদ উল্লাহ ও রশীদ আহমদ এর যৌথ উপস্থাপনায় হামদে বারীয়ে তা’য়ালা ও নাতে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পেশ করা হয়।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের ব্রুকলীন ইস্ট চ্যাপ্টারের সভাপতি জনাব মুহাম্মদ আলমগীর হোসাইন। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মসজিদের কনট্রাশন সম্পকির্ত ইনজার্চ আমিনুর রসুল জামশেদ।

প্রধান মেহমান হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও চিন্তাবিদ, মুনার ন্যাশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট জনাব আবু আহমদ নুরুজ্জামান।

926945120897_n

প্রধান আলোচক হিসেবে আলোচনা পেশ করেন, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ, বি এম এম সি সির ইমাম ও খতীব মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন। মেহমান হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন মুনার ন্যাশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট জনাব এ বি এম ফয়জুল্লাহ, বায়তুশ শরফ মসজিদ এন্ড ইসলামিক সেন্টারের ইমাম ও খতীব মাওলানা জাকারিয়া মাহমুদ, জামেয়া কুরআনিয়া একাডেমী জ্যামাইকা এর প্রিন্সিপাল হাফেজ মোজাহিদুল ইসলাম, বি আই সির প্রেসিডেন্ট জনাব সাইফুল আলম আজম,আস সাফা ইসলামিক সেন্টারের সেক্রেটারী জেনারেল মুফতী লুৎফুর রহমান ক্বাসিমী, আন নূর কালচারাল সেন্টার জ্যাকসন হাইটস এর প্রিন্সিপাল মুফতি মুহাম্মাদ ইসমাইল নূরী,দারুল উলূম নিউইয়র্ক এর শিক্ষক মাওলানা কামাল উদ্দীন, ডাক্তার আতাউল ওসমানী, আল ফুরকান জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা রফিক উদ্দীন, বিশিষ্ট সংগঠক হাফেজ আবদুল্লাহ আল আরিফ,প্রবীন মুরব্বী আলহাজ মুহাম্মদ মোস্তফা, জনাব জোবায়ের আহমদ প্রমূখ।

বায়তুশ শরফ মসজিদ এন্ড ইসলামিক সেন্টারের ইমাম ও খতীব মাওলানা জাকারিয়া মাহমুদের মুনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয় অনুষ্ঠানটি।