সকল সাংস্কৃতিক কর্মিদের সঙ্গে নিয়ে কাজ করতে চাই : আবু সুফিয়ান

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

abu-1

আবু সুফিয়ান। শ্রোতারা জাগরণী শিল্পী হিসেবে যাকে আপন করে নিয়েছে। ষ্টেজে তার আগমন মানেই শ্রোতাদের বাধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাস। তেজদিপ্ত কন্ঠ যিনি প্রতিনিয়ত গেয়ে যান দেশ, জাতি ও ধর্মের গান। সুরের ঝংকারে প্রতিবাদ করে যান অন্যায়, অবিচার, জুলুম-নির্যাতনের বিরুদ্ধে।

দেশের শীর্ষ স্থানিয় ইসলামী ঘরানার সাংস্কৃতিক দল “কলরব”-এর যুগ্মনির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব দক্ষতার সাথে পালন করে যাচ্ছেন দীর্ঘদিন যাবত। ইসলামী সাংস্কৃতিক অঙ্গন সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা হয়েছে ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকমের বিশেষ প্রতিনিধি আলাউদ্দিন বিন সিদ্দিকের সাথে।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: আসসালামু আলাইকুম!
আবু সুফিয়ান: ওয়ালাইকুমুস সালাম।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: কেমন আছেন? মনে হচ্ছে খুব ব্যস্ত সময় পার করছেন!

আবু সুফিয়ান : এইতো সবকিছু মিলিয়ে একটু ব্যাস্ত সময় পার করতে হচ্ছে, আল্লাহ এবং ভক্তদের ভালোবাসার জন্য এতটু কিছুইনা।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: সাংস্কৃতিক অঙ্গনে আপনার পদচারণা প্রায় এক যুগ, তো এর শুরু কিভাবে যদি ইনসাফ পাঠকদের জানাতেন।

আবু সুফিয়ান: আসলে সংগীতের প্রতি আমার দুর্বলতা সেই ছোটবেলা থেকেই, হিফজ বিভাগে যখন পড়তাম তখন থেকেই গুন গুন করে চেষ্টা করতাম। প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি জলসায় সংগীত পরিবেশনা করতাম। আশেপাশের মাহফিলেও সুযোগ করে নিতাম। এভাবেই হাটি-হাটি পা-পা করে সামনের দিকে…


%e0%a6%86%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%89%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a6%e0%a6%bf%e0%a6%a8-%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%a8-%e0%a6%b8%e0%a6%bf%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a6%e0%a6%bf%e0%a6%95
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকমের বিশেষ প্রতিনিধি আলাউদ্দিন বিন সিদ্দিক ও আবু সুফিয়ান

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: কলরবে যুক্ত হলেন কিভাবে? মানে ঐ সময়তো আরো সঙ্গীত দল ছিলো আপনি কলরবকেই কেন নির্বাচন করলেন?

আবু সুফিয়ান: কলরবের আত্মপ্রকাশ তখনো ঘটেনি। দাবানল এবং রণাঙ্গন শিল্পীগোষ্ঠী ছিলো মাঠে। আমি বলছি ২০০১ দিকের কথা। তখন হিফজ বিভাগে পড়তাম একারনে ইচ্ছে থাকা সত্বেও সময় পাওয়া যেতোনা, তারপর আবার পড়তাম মাদানিনগর মাদরাসায়। একটা পর্যায় হিফজ শেষ করি। তখন কলরব প্রতিষ্ঠিত। হিফজ বিভাগে পড়াকালীন আজাদ ভাইয়ের (আইনুদ্দিন আল আজাদ) বিখ্যাত এ্যালবাম “কি হবে” রিলিজ হয়। টেপরেকর্ডার কিনে খুব শুনতাম, এবং বাসাতেও আব্বু বিভিন্ন এ্যালবাম নিয়ে আসতো আজাদ ভাইয়ের, এভাবেই কলরবের দিকে ধাবিত হতে থাকি। একটা সময় ভক্ত হয়ে যাই কলরব এবং আজাদ ভাইয়ের। তাই কলরবকেই নিজের জন্য নির্বাচন করে নেই।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: আপনাকে শ্রোতারা জাগরণী শিল্পী হিসেবে আপন করে নিয়েছে। ষ্টেজে আপনার আগমন মানেই শ্রোতাদের বাধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাস। কেমন লাগে শ্রোতা-দর্শকদের এমন ভালোবাসা?

আবু সুফিয়ান : এ প্রশ্নের উত্তর আসলে গুলো দেয়ার মত নয়, এবিষয়গুলো আসলে ভাষায় প্রকাশ করা যায়না। মনে হয়না ভক্তদের এই ভালোবাসা গুলো প্রকাশ করার মতো কোন শব্দ পৃথিবীর অভিধানে আছে ।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: আইনুদ্দিন আল আজাদ (রহঃ) একটি নাম, একটি জাগরণ, একটি আন্দোলন, একটি প্রতিষ্ঠান, একটি ইতিহাস। তার অবদান আমাদের ইসলামী ঘরানার সঙ্গীতাঙ্গনে অপরিসীম যা বলে শেষ করার নয়। তাকে নিয়ে আপনার শেষ এ্যালবাম সংহারে একটি সঙ্গীতও রয়েছে। আপনিও তার হাত ধরেই এসেছেন এই জগতে। যদি বলতেন তার বিষয় কিছু।

আবু সুফিয়ান : আসলে আজাদ ভাই হলেন সবার,পুরো জাতির, পুরো জাতির হৃদয় জড়িয়ে আছেন আজাদ ভাই, সবাই তাকে ভালোবাসে আমিও তাদের কাতারের একজন। তবে এতটুকু বলতে পারবো আজাদ ভাইকে সেই হিফজ বিভাগে থাকতেই এমনভাবে অন্তরে গেথে নিয়েছি, যে তখনই বুঝতে পারি এই ব্যক্তিকে আমি ছাড়তে পারবোনা, আমি এই ব্যক্তির সাথে মিশে যাবো তার স্বপ্ন গুলোকে নিজের স্বপ্ন বানিয়ে নিবো।
আজাদ ভাই এখন নেই কিন্তু তার স্বপ্ন গুলো রয়ে গেছে, কলরব তার স্বপ্ন গুলো সংরক্ষণ করেছে। ইনশাআল্লাহ কলরবকে নিয়ে তার স্বপ্ন গুলো বাস্তবে রুপান্তরিত করবো। এই লক্ষ্যেই এগিয়ে চলছি।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: আপনার প্রিয় গান কোনটি অর্থাৎ আপনি কোন গানটি গাইতে বেশী ভালোবাসেন?

আবু সুফিয়ান: আমার কাছে প্রতিটি সংগীত হচ্ছে প্রান, আমার প্রতিটি সংগীতই হচ্ছে আমার জন্য প্রেরণা, ভালোবাসা-ভালোলাগা সঙ্গীতের প্রতিটি অন্তরার মাঝে অঙ্গাআঙ্গি ভাবে জড়িয়ে থাকে আমার জন্য।


%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%81-%e0%a6%b8%e0%a7%81%e0%a6%ab%e0%a6%bf%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a6%a8-1


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: আপনার বেশ কিছু ভিডিও দর্শকদের মাঝে সাড়া ফেলেছে। ইউটিউবেও বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ভিডিওগুলো। কেমন লাগে বিষয়টা?

আবু সুফিয়ান : বিষয়টি সত্যিই ভালো লাগার মতো,যখন কোন ভক্ত এসে বলে আপনার অমুক ভিডিওটি খুব ভালো লেগেছে, আমি দশবার বিশবার ত্রিশবারেরও বেশী দেখেছি তখন এক অদ্ভুত ভালোগার অনুভূতি আমার ভেতরে দোল খেয়ে যায়।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: অনেকেই বলে থাকেন, আমাদের দেশের ইসলামী ঘরানার সঙ্গীত ভিডিওগুলোর মানের দিকে ঠিক সেই ভাবে খেয়াল রাখা হয় না, যেভাবে রাখা উচিৎ। আপনার কি মনে হয়?

আবু সুফিয়ান : ঠিক, তবে আমরা চেষ্ট করছি মান বাড়ানোর জন্য। আলহামদুলিল্লাহ্‌ ইতো মধ্যে কিছু সংগীত আমরা দিতে পেরেছি মানসম্মত ভাবেই। যেমন, গত রমাজানের ঈদে আমি একটি সংগীত করেছি “ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে”, এবার পবিত্র হজ নিয়ে করলাম “লাব্বাইক আল্লাহুম্মা”, আরো আছে “সাল্লেয়ালা মুহাম্মাদ” এবং শিহরন শিল্পীর বন্ধুরা করেছেন কবর মুখী মরমি একটি সংগীত “বাড়ী ওয়ালা” এগুলো আমাদের জন্য অনেক কিছু আমি মনে করি। আপনাদের ভালোবাসায় আমরা সামনে আরো ভালো কিছু উপহার দিতে পারবো ইনশাআল্লাহ।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি আমরা কলরবকে প্রতিবাদী মঞ্চেও দেখতে পাই যেমন তনু হত্যা, মসজিদের ইমাম হত্য সহ বিভিন্ন সময়ে কলরবকে প্রতিবাদী মানববন্ধন করতে দেখা যায়। এসবের মাধ্যমে কলরব জাতির কাছে নতুন একটা পরিচিতি লাভ করেছে এবিষয়ে যদি কিছু বলতেন!

আবু সুফিয়ান : জি, সংগীতের পাশাপাশি আমরা চাই সামাজিক কাজ গুলোও করতে। আর আজাদ ভাই কলরবকে সামাজিক সংগঠনের রুপ দিয়ে গেছেন। তাছাড়া বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে এটা আমাদের কর্তব্যও বটে। আমাদের গানেও যেমন অসংগতির কারন গুলো বলে থাকি, ঠিক তেমনিভাবে অসংগতি দেখলে মাঠে নামতেও প্রস্তুত থাকি সর্বদা ইনশাল্লাহ!


%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%81-%e0%a6%b8%e0%a7%81%e0%a6%ab%e0%a6%bf%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a6%a8-2


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: ভক্তদের জন্য আপনার নতুন কোন চমক
রয়েছে কী?

আবু সুফিয়ান : জি! ভক্তদের জন্য আমার বেশ কিছু ভিডিও সংগীত রয়েছে, সে গুলো উপহার হিসেবে ধারাবাহিক ভাবে প্রকাশ করবো ইনশাআল্লাহ।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: সর্ব শেষ কলরব ভক্তদের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন!

আবু সুফিয়ান : কলরব ভক্তদের বলবো আপনারা কলরবকে আরো বেশী বেশী ভালোবাসুন সাথে সাথে দেশের সকল ইসলামী সাংস্কৃতিক দল গুলোকেও ভালোবাসুন, আমি সকল সাংস্কৃতিক কর্মিদের পাশে চাই সকলকে নিয়ে কাজ করতে চাই। সুতরাং আমরা যেনো একই কাতারে কাঁদেকাঁদ মিলিয়ে অপসংস্কৃতির মোকাবেলা করতে পারি সেই দোয়াটুকু করুন।


ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম: ইনসাফকে সময় দেয়ার জন্য ধন্যবাদ

আবু সুফিয়ান : আপনাদেরকেও অনেক অনেক ধন্যবাদ।