তোমাদের বুলেট কখনোই এই কালিমা থেকে আমাদের দূরে সরাতে পারবে না : ক্রিকেটার রুবেল

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | সোস্যাল মিডিয়া ডেস্ক


নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে খ্রিষ্টান সন্ত্রাসবাদীর হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত প্রায় ৪৯ জনের শহীদ হয়েছেন। অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এমন ঘটনার পর হতাহতদের জন্য পুরো বিশ্ব জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সেই সঙ্গে বাংলাদেশ দলের নিরাপত্তার জন্যও উদ্বেগ প্রকাশ করতে দেখা গেছে। এদিকে নিউজিল্যান্ডে খ্রিষ্টান সন্ত্রাসবাদী হামলায় আক্রান্ত এক ব্যক্তির ছবি দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বাংলাদেশ জাতীয় দলের পেসার রুবেল হোসেন লিখেন-

”ছবিতে জঙ্গী হামলার শিকার এক মুসলিম আঙ্গুল দিয়ে কালিমার সাক্ষ্য দিচ্ছেন। তোমাদের বুলেট কখনোই এই কালিমা থেকে আমাদের মুসলিমদের দূরে সরাতে পারবে না। মুখে উচ্চারণ করতে না পারলেও আঙুল উঁচিয়ে সাক্ষ্য দিয়ে যাবো। #InShaAllah”

রুবেল আরো লিখেন-
”মনে রাখবেন
সারা বিশ্বের মুসলমান ভয় করে একজনকে তিনি হলেন মহান আল্লাহ তার ভয়ে ভীত মুসলিম উম্মাহ। কোন সন্ত্রাসীর কাছে নয়।”

আরেক স্ট্যাটাসে রুবেল লিখেন-
”আলহামদুলিল্লাহ
আল্লাহ সব কিছুর মালিক। এই মসজিদে আমিও নামাজ পড়ে এসেছি। এটা একটা পরিকল্পিত হামলা। মহান আল্লাহর কাছে লাখ লাখ শুকরিয়া আমাদের ক্রিকেটারদের রক্ষা করেছেন এত বড় একটা দুর্ঘটনা থেকে… যে সমস্ত মুসলমান ভাইয়েরা মারা গেছে আল্লাহ তাদেরকে জান্নাত নসিব করুন আমিন।”


নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলা; শহীদের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯ জনে
মার্চ ১৫, ২০১৯
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় খ্রিষ্টান সন্ত্রাসবাদীর হামলায় এখন পর্যন্ত শহীদ হয়েছেন ৪৯ জন মুসলিম। নিউজিল্যান্ড ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম স্টাফ ও কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা এ তথ্য জানিয়েছে।

আজ (১৫ মার্চ) নিউজিল্যান্ডের সাউথ আইল্যান্ডে আল নূর মসজিদে স্বয়ংক্রিয় রাইফেল দিয়ে অন্তত ৫০টি গুলি করা হয়েছে।

স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টার দিকে যখন এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে, তখন জুমার নামাজের প্রস্তুতি চলছিল।

পার্শ্ববর্তী লিনউড মসজিদেও হামলায় নিহতের ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, একটি আধা স্বয়ংক্রীয় শর্টগান ও রাইফেল দিয়ে সাউথ আইল্যান্ডে আল নূর মসজিদে অন্তত ৫০টি গুলি ছোড়েন ২৮ বছর বয়সী ব্রেনটন ট্যারেন্ট। সে নিউ সাউথ ওয়েলসের গ্রাফটন থেকে এসেছেন।

হামলায় জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত এক নারীসহ চার ব্যক্তিকে কারাগারে আটক রাখা হয়েছে।

আটকের সময় তাদের একজন সুইসাইড ভেস্ট পরা অবস্থায় ছিলেন।

হত্যাকাণ্ড ঘটনার আগে টুইটারে ৮৭ পাতার ইশতেহার আপলোড করেছেন হামলাকারী। এর মাধ্যমে সন্ত্রাসী হামলার আভাস আগেই সে দিয়েছিল।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্দা আরডান এ হামলাকে নিউজিল্যান্ডের জন্য সবচেয়ে অন্ধকার দিন বলে উল্লেখ করেছেন।

সূত্র : এফপি