চুক্তির পরদিনই মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিক নেওয়া স্থগিত

ahmad-zahidবাংলাদেশ থেকে ১৫ লাখ শ্রমিক নিতে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষরের এক দিন পরই বিদেশি শ্রমিক নেওয়ার সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছে মালয়েশিয়া সরকার। শ্রমিকদের চাহিদা নিশ্চিত করেই পরবর্তী প্রক্রিয়া গ্রহণ করবে মালয়েশিয়া।

শুক্রবার মালয়েশীয় সরকার এ সিদ্ধান্ত নেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী আহমাদ জাহিদ হামিদি।

মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বারনামা জানিয়েছে, শুক্রবার সেনাবাহিনীর একটি ক্যাম্পে এক বৈঠকের পর দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী আহমেদ জাহিদ হামিদি সব ‘সোর্স কান্ট্রি’ থেকে শ্রমিক নেওয়া স্থগিত রাখার এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, কতো শ্রমিক আমাদের প্রয়োজন সে বিষয়ে সরকার সন্তোষজনক তথ্য না পাওয়া পর্যন্ত বিদেশি কর্মী নেয়া স্থগিত থাকবে।

অপর দিকে পুত্রজায়ায় এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী রিচার্ড রায়ট জানান, শ্রমিক নেয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাথে বৃহস্পতিবার একটি চুক্তি হয়েছে। কিন্তু ১৫ লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক মালেয়েশিয়ায় কাজের সুযোগ পাবে এ তথ্য সঠিক নয়।

এরআগে ঢাকায় বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মী প্রেরণ সংক্রান্ত জিটুজি প্লাস সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশের পক্ষে স্বাক্ষর করেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি এবং মালয়েশিয়ার পক্ষে সে দেশের মানবসম্পদমন্ত্রী সেরি রিচার্ড রায়ট। ওইদিন নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেছিলেন, বাংলাদেশ থেকে ৩ বছরে ১৫ লাখ শ্রমিক নেবে মালয়েশিয়া।