অবস্থান স্পষ্ট কারার জন্য মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসউদকে ডাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাইয়াতুল উলইয়া | insaf24.com

অবস্থান স্পষ্ট কারার জন্য মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসউদকে ডাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাইয়াতুল উলইয়া

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


দাওয়াতে তাবলীগের বিতর্কিত মুরব্বী মাওলানা সাদ কান্দলবী’র বিষয়ে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করার জন্য বেফাকুদ্দিনিয়ার চেয়ারম্যান মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসউদকে ডাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কওমী মাদরাসা বোর্ড সমূহের সম্মেলিত বোর্ড আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতুল কওমিয়া কতৃপক্ষ।

আজ (১৭ মার্চ) বোর্ডের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানিয়েছেন হাইয়াতুল উলইয়ার সদস্য মাওলানা বাহাউদ্দীন জাকারিয়া।

তিনি জানান, দাওয়াতে তাবলীগের বিতর্কিত মুরব্বী মাওলানা সাদ কান্দলবী’র বিষয়ে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করার জন্য বেফাকুদ্দিনিয়ার চেয়ারম্যান মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসউদের অবস্থান জানার জন্য হাইয়াতুল উলইয়ার চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফী’র পক্ষ থেকে তাঁকে ডাকা হবে। এবিষয়ে কাজ করার জন্য একটি কমিটিও করে দেয়া হয়েছে।

সকাল ১০টায় ঢাকার ফরিদাবাদ মাদরাসায় শুরু হয় এ বৈঠক। চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন হাইয়াতুল উলয়ার চেয়ারম্যান আল্লামা আহমদ শফী। বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন, মাওলানা আশরাফ আলী, মাওলানা আজহার আলী আনোয়ার শাহ, মুফতী মোহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, মুফতী ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা বাহাউদ্দীন জাকারিয়া, মুফতি রুহুল আমিন, মাওলানা মুহিব্বুল হক, মুফতি নুরুল আমিন, মুফতি মোহাম্মদ আলী, মাওলানা আনাস মাদানী, মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।


বিশ্বব্যাপী প্রশংসায় ভাসছে সেই সাহসী কিশোর, আরও ডিম কেনার তহবিল গঠন
মার্চ ১৭, ২০১৯
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


অস্ট্রেলিয়ার সিনেটর ফ্র্যাসার অ্যানিংয়ের মাথায় ডিম ফাটিয়ে ব্যাপক প্রশংসায় ভাসছেন সেই কিশোর উইল-কনোলি।

সেইসঙ্গে ওই কিশোরকে হামলা ও তাকে নোংরা কথা বলার জন্যে সিনেটর ফ্র্যাসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের ও বহিষ্কারের দাবি তুলছে অস্ট্রেলিয়ার জনগণ। এছাড়া আরও ডিম কেনার জন্য তহবিল গঠন করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফ্র্যাসার অ্যানিংয়কে বহিষ্কারের দাবিতে চার্জডটঅর্গের মাধ্যমে অন্তত ৫ লাখ ব্যক্তি আবেদন করেছেন।

এছাড়া ফ্র্যাসার অ্যানিংয়ের কঠোর সমালোচনা করছেন দেশটির অনেক রাজনৈতিক নেতা। সমালোচনা করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনও।

কিশোরকে মারধর করায় ওই সিনেটরের সমর্থকদের নিষ্ঠুর বলে অভিহিত করেছেন দেশটির জনগণ। সেইসঙ্গে ওই কিশোরকে দিচ্ছেন হিরোর তকমা।

অস্ট্রেলিয়ার একজন সিনেটর ডেরিন হিঞ্চ টুইটার বার্তায় জানান, অ্যানিংয়ের প্রতিক্রিয়া ছিল প্রবৃত্তিগতভাবে। কিন্তু, তার গুণ্ডাদের প্রতিক্রিয়া ছিলো মাত্রাতিরিক্ত।

ওই কিশোরের পক্ষে আইনি লড়াই ও আরো ডিম কেনার জন্য অর্থ সংগ্রহ করতে শুরু করেছে একটি তহবিল সংগ্রহকারী সংস্থা।

জানা যায়, গত ১৭ ঘণ্টায় ‘গোফান্ডমি’ প্রচারণার মাধ্যমে সংস্থাটি ১৪ হাজার মার্কিন ডলার সংগ্রহ করেছে।

উল্লেখ্য, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুই মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা হয় গত শুক্রবার। এতে অর্ধশতাধিক মুসলিম শহীদ হয়েছেন। খ্রিষ্টান সন্ত্রাসবাদীর ওই হামলার দায় মুসলিম অভিবাসীদের উপর চাপিয়ে বিতর্ক উসকে দেন অস্ট্রেলিয়ার সিনেটর ফ্রেজার অ্যানিং। এর প্রতিবাদ জানিয়ে সিনেটরের মাথায় ডিম ভেঙে দেন এক তরুণ।

শনিবার মেলবোর্নের মোরাবিনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘটনা ঘটে। সিনেটরের ডিম ভাঙার সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এরপর থেকে বিশ্বব্যাপী ব্যাপক প্রশংসায় ভাসছেন ওই সাহসী কিশোর।