ডিসেম্বর ১০, ২০১৬

গ্যালাক্সি নোট-সেভেন নিয়ে ৭টি দেশে বিমান ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

অগ্নিকাণ্ডের বেশ কয়েকটি অভিযোগ পাওয়ায় স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি নোট৭ স্মার্টফোন বিমানে ভ্রমণের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের পরিবহন কর্তৃপক্ষ ডিভাইসটি নিষিদ্ধ করেছে ।

ইউএস ডিপার্টমেন্ট অব ট্রান্সপোর্টেশন এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে জানিয়েছে, কেউ যদি গ্যালাক্সি নোট৭ স্মার্টফোনের প্রথম বা পরবর্তী সংস্করণ নিয়ে ভ্রমণের চেষ্টা করে তাহলে তাকে জরিমানা গুনতে হবে এবং ডিভাইসটি বাজেয়াপ্ত করা হবে।
ইউএস ট্রান্সপোর্টেশন সেক্রেটারি অ্যান্থনি ফক্স বলেন,ব্যাগ বা লাগেজে যাত্রীরা স্যামসাংয়ের এ ডিভাইস বহন করতে পারবেন না।
নিষেধাজ্ঞাটি জারি করা হয়েছে আঞ্চলিক ওআন্তর্জাতিক উভয় ধরনের বিমানে ভ্রমণের ক্ষেত্রে।

স্যামসাং এরই মধ্যে ডিভাইসটির সব সংস্করণ প্রত্যাহার করে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এমনকি স্থায়ীভাবে গ্যালাক্সি নোট৭ স্মার্টফোনের উৎপাদনও বন্ধ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।
যুক্তরাষ্ট্রে নোট৭ ডিভাইসের ব্যাটারি বিস্ফোরিত হয়ে এ পর্যন্ত ৯৬টি দুর্ঘটনার অভিযোগ পেয়েছে স্যামসাং। এর মধ্যে ১৩টি ঘটনায় ডিভাইস ব্যবহারকারী অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন। এ ছাড়া ৪৭টি ঘটনায় অন্যান্য সম্পদের ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।
স্যামসাং নোট৭ গ্রাহকদের অর্থ ফেরত বা ডিভাইস বদলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। পাশাপাশি যেসব গ্রাহক নোট৭ স্মার্টফোনের পরিবর্তে স্যামসাংয়ের অন্য কোনো মডেলের ডিভাইস নিতে আগ্রহী হবেন, তাদের অতিরিক্ত ১০০ ডলার পরিশোধ করবে প্রতিষ্ঠানটি।

যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও বিমানে সব ধরনের গ্যালাক্সি নোট৭ ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে জাপান। দেশটির পরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে এ ঘোষণা দেয়া হয়। মন্ত্রণালয় এয়ারলাইনগুলোকে যাত্রীদের স্মার্টফোন চার্জ দেয়া অথবা ব্যবহার থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানিয়েছে। কোরিয়ান এয়ার সরকারি গাইডলাইন মেনে উড়োজাহাজে গ্যালাক্সি নোট৭ ব্যবহার না করার অনুরোধ জানিয়েছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও হংকংগামী উড়োজাহাজে গ্যালাক্সি নোট৭ ব্যবহার একেবারেই নিষিদ্ধ। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এয়ারলাইনসও উড়োজাহাজে নোট৭ ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।