মুসলিম ব্যক্তিগত আইনে অবাঞ্ছিত হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না: কামরুজ্জামান

মুহাম্মদ কামরুজ্জামান
মুহাম্মদ কামরুজ্জামান

মুসলিম ব্যক্তিগত আইনে অবাঞ্ছিত হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না বলে কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারি দিলেন সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান।

আজ (মঙ্গলবার) কোলকাতার ধর্মতলায় কয়েক হাজার ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সমাবেশে বক্তব্য রাখার সময় মুহাম্মদ কামরুজ্জমান বলেন, ‘ভারতের মানুষ কীভাবে ধর্মপালন করবে সেটা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। এ নিয়ে  রাজনৈতিকভাবে কোনো হস্তক্ষেপ করা হোক এটা আমরা চাই না। আমরা চাই, দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদি দেশের উন্নয়নের ব্যবস্থা করুন।’

মুহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, ‘সীতাপুর মাদ্রাসার ৩৫৬ বিঘা ওয়াকফ সম্পত্তি আছে, যে সম্পত্তির একটি অংশ হল কোলকাতার রাজভবন। এর একটি অংশ হল পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভবন এবং কোলকাতা ইডেন গার্ডেন। পশ্চিমবঙ্গে ২ লাখ ২০ হাজার ওয়াকফ এস্টেট আছে। এতে দেড় লাখ একর ওয়াকফ সম্পত্তি আছে। এসব সম্পত্তি পুঁজিপতি, শিল্পপতিরা আত্মসাৎ করে রেখেছেন। ওইসব সম্পত্তির অনেক অংশ সরকারি কাজেও ব্যবহৃত হয়। এসব সম্পত্তি মাদ্রাসা এবং মসজিদের সম্পত্তি। কিন্তু মসজিদ এবং মাদ্রাসার সঙ্গে যারা যুক্ত তারাই আজকে সব থেকে বেশি দরিদ্র্য। তারই কঠিন দারিদ্রতার সঙ্গে লড়াই করছে।’

ওয়াকফ সম্পত্তি যারা জবরদখল করে আছে তাদের বিরুদ্ধে রাজ্য সরকারকে কঠোর আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করে সেসব সম্পত্তি পুনরুদ্ধার করতে হবে বলেও মুহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন।

আজ কোলকাতার ইমাম সমাবেশে কমপক্ষে ৩৫ হাজার ইমাম-মুয়াজ্জিনসহ ধর্মপ্রাণ মানুষজন উপস্থিত ছিলেন মুহাম্মদ কামরুজ্জামান জানান।

 

পরে মুহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, ‘আমরা শরীয়া আইনের বাইরে ‘অভিন্ন দেওয়ানি বিধি’ কোনো ভাবেই মেনে নেব না। শরীয়া আইনের উপরে কেন্দ্রীয় সরকারের কোনো অবাঞ্ছিত হস্তক্ষেপ মেনে নেয়া হবে না।’

তিনি বলেন,‘রাজ্যের ক্ষমতাসীন তৃণমূল সরকারকে ইমামদের জন্য মাসিক ১০ হাজার টাকা এবং মুয়াজ্জিনদের জন্য মাসিক ৬ হাজার টাকা ভাতা চালু করতে হবে। এ ব্যাপারে সমস্ত প্রকারের হেনস্থা বন্ধ করতে হবে। ইমাম এবং মুয়াজ্জিনদের চিকিৎসা এবং তাদের সন্তানদের লেখা পড়ার দায়িত্ব নিতে হবে ওয়াকফ বোর্ডকে।’ অবসরপ্রাপ্ত ইমাম-মুয়াজ্জিনদের আজীবন ভাতা চালু রাখারও দাবি জানান তিনি।

কোলকাতার ইমাম সমাবেশে তৃণমূলের তিন সংসদ সদস্য যথাক্রমে আহমদ হাসান ইমরান, সুলতান আহমেদ এবং আইনজীবী ইদরিস আলী উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া কোলকাতা রেড রোডের ইমামে ঈদায়েন কারি ফজলুর রহমানসহ বহু বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

পার্সটুডে