রোহিঙ্গা ইস্যুতে সুচির ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ছে

মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর উগ্র বৌদ্ধ ও সামরিক বাহিনীর হত্যাকাণ্ড এবং নির্যাতনের বিষয়ে দলিলপত্র ও প্রমাণাদি প্রকাশের পর দেশটির কার্যত প্রধান অং সান সুচির ওপর চাপ বাড়ছে। দেশটির সেনাবাহিনীর হত্যাকাণ্ড ও দমন-পীড়ন মানবতাবিরোধী অপরাধ হিসেবেও বিবেচিত হতে পারে।

বিষয়টি নিয়ে আলোচনার আহ্বান জানিয়েছেন দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর সংগঠন আসিয়ানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। তারা বলেছেন, কীভাবে রোহিঙ্গা মুসলমানদের এই দুঃখ-দুর্দশার অবসান ঘটানো যায় তার উপায় বের করতে হবে। এছাড়া, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল  আজ (সোমবার) একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। চলতি বছরের ৯ অক্টোবর থেকে নতুন করে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া হত্যাকাণ্ড ও দমন-পীড়নের তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। ৫৯ পৃষ্ঠার এ প্রতিবেদনে নানা ধরনের নির্যাতন ও বর্বতার চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি রোহিঙ্গা মুসলমানদের রক্ষায় বাংলাদেশের উদাসীনতাকে দায়ী করা হয়েছে।

অ্যামনেস্টির প্রতিবেদনে পরিষ্কার ভাষায় বলা হয়েছে, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও পুলিশ নির্বিচারে বেসামরিক লোকজনের ওপর গুলি চালিয়েছে এবং নারী ও তরুণীদের ধর্ষণ করেছে। এছাড়া, সারা গ্রাম জ্বালিয়ে দিয়েছে, ব্যাপকভাবে পুরুষদের আটক করেছে এবং তাদেরকে কোথায় রাখা হয়েছে কিংবা তাদের বিরুদ্ধে কী অভিযোগ সে সম্পর্কে কোনো তথ্য দেয় নি।

পার্সটুডে