জানুয়ারি ২৪, ২০১৭

ধৈর্য্য: বিশ্বনবী স. এর অনন্য বৈশিষ্ট্য

ধৈর্য্য: বিশ্বনবী স. এর অনন্য বৈশিষ্ট্য

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

ফেরদৌস আবদাল তালুকদার


তায়েফের মাটিতে স্বীয় পালকপুত্র হযরত যায়েদ (রাঃ) কে নিয়ে নবীজী দ্বীনের আহ্ববান শুরু করলেন। কিন্তু কাফেররা অস্বীকার করল। নবীর (সাঃ) উপর পাথর মারতে শুরু করলো। প্রিয় নবীর (সাঃ) সারা দেহ মোবারক রক্তে রঞ্জিত হলো। গায়ের কাপড় রক্তাক্ত হয়ে শরীরের সাথে একিভুত হয়ে গেল। পা মোবারক রক্তাক্ত হয়ে জুতোয় জট লেগে গেল। অত্যন্ত ভীত সন্ত্রস্ত ও আশাহত মনে নবীজী (সাঃ) বলতে লাগলেন ওরা দ্বীনের দাওয়াতের জন্য আমাকে এভাবে মারধর করলো। এরা এত নির্দয় কেন? অত:পর জিবরাঈল (আ:) তার বাহিনী নিয়ে রাসুলের (সাঃ) কাছে আসলেন, কষ্টের প্রতিশোধ নিতে অনুমতি চাইলেন কিন্তু বিশ্বশান্তির দূত রাসুল (সাঃ) তায়েফের উপর শাস্তি অবতীর্ণ হতে সম্মতি দেননি ।

আহ কি করুন কাহিনি! ইতিহাস সাক্ষি, তায়েফের সর্দার যার নির্দেশে এত কিছু! সে ও নবীজীর (সাঃ) করুন অবস্থা বরদাশত করতে পারল না। তারও অন্তরে দরদ আসল।

স্বীয় গোলাম কে দিয়ে কিছু আংগুরের ছড়া বিশ্বনবীর (সাঃ) জন্য পাঠিয়ে দিল। আর বলতে লাগল হে মুহাম্মদ (সাঃ), কসম তোমার আত্নিয়তার তুমি আংগুর গুলো খেয়ে নাও।

আহ! কত শোচনীয় অবস্থার সৃষ্টি হলে শত্রুর মনেও দরদ আসে। নবীজী (সাঃ) সরদারের কথা রাখলেন। বিসমিল্লাহ বলে আঙুরের রস খেতে লাগলেন। গোলাম বিসমিল্লাহ আওয়াজ শুনে আশ্চর্য্যাম্ভিত হয়ে বলতে লাগলো, কি পড়লেন হুজুর? আপনি কে? প্রতিউত্তরে বিশ্বনবী (সাঃ) বললেন ঐ স্বত্তার নাম নিয়ে খানা শুরু করলাম যিনি আমাদের সৃষ্টিকর্তা । তুমি কে? কোথায় তোমার বাড়ি? গোলাম বললো, আমি অমুক যায়গার বাসিন্দা। তখন নবীজী (সাঃ) বললেন ওহ হো, তুমি তাহলে আমার ভাই ইউনুসের এলাকার লোক। গোলাম বলতে লাগলো আপনি উনাকে জানেন কিভাবে? ওনি তো নবী ছিলেন। নবীজী (সাঃ) বললেন, আমি তারই ভাই। আমি ও আল্লাহ প্রেরিত রাসুল। একথা শুনে গোলাম তৎক্ষনাত মুসলমান হয়ে গেল। নবীজীর ব্যথিত হৃদয় আনন্দিত হয়ে তায়েফ বাসির জন্যে হেদায়াত ও বরকতের দোয়া করতে শুরু করলেন। আল্লাহ তায়ালা নবীজীর দোয়া কবুল করলেন। সবাই কে হেদায়াতের নুরে আলোকিত করলেন। মোটকথা, নবীজির চুড়ান্ত ধৈর্য্যের কারনেই তায়েফ বাসী হেদায়াতের নুরে আলোকিত হলো। এ জন্যই দ্বীনের দাঈ যিনি হবেন তার মাঝে ও চুড়ান্ত পর্যায়ের ধৈর্য্যশীল হতে হবে।

আল্লাহ সুবাহানাহু ওয়া তায়ালা আমাদেরকেও ধৈর্যশীল হওয়ার তাওফিক দিন। আমিন।
লেখক : প্রবাসী আলেম।