মুসলিম জনসংখ্যা অনুপাতে বরাদ্দের দাবি তোলায় ওয়াইসি’র বিরুদ্ধে বিজেপির নালিশ

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

মজলিশ-ই ইত্তেহাদুল মুসলেমিন’ (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি

ভারতে বিজেপি-শিবসেনা শাসিত মহারাষ্ট্রে বৃহন্মুম্বাই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের (বিএমসি) বাজেটে মুসলিম জনসংখ্যা অনুপাতে ব্যয় বরাদ্দের দাবি তোলায় মজলিশ-ই ইত্তেহাদুল মুসলেমিন’ (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসির বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়েছে বিজেপি।

গত রোববার মহারাষ্ট্রের মদনপুরা এলাকায় দলীয় এক জনসভায় বক্তব্য রাখার সময় বৃহৎ মুম্বাই পৌরসভার বাজেটে ২১ শতাংশ মুসলিমদের উন্নয়নের জন্য ৭,৭০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা উচিত বলে মন্তব্য করেন।

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি রোববার বৃহৎ মুম্বাই পৌরসভার নির্বাচনের জন্য দলীয় প্রচারাভিযানের সূচনা করেন। এর একদিন পরেই গতকাল সোমবার ভারতের সুপ্রিম কোর্ট এক আদেশে জাতি, ধর্ম, সম্প্রদায়, ভাষা ইত্যাদির নামে ভোট চাওয়াকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। নির্বাচনি বিধি অনুসারে তা দুর্নীতিমূলক আচরণ বলে বিবেচিত হবে বলেও আদালত জানায়। এরপরেই হিন্দুত্ববাদী বিজেপি’র পক্ষ থেকে ‘মিম’ প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগ করার কথা প্রকাশ্যে এল।

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি বৃহৎ মুম্বাই পৌরসভায় ক্ষমতাসীন শিবসেনা-বিজেপি জোটের সমালোচনা করে বলেন, ‘মুম্বাইয়ের উর্দু স্কুলে কোনো শিক্ষক নেই এবং সেসব স্থানে বুনিয়াদি পরিকাঠামো নেই। সমস্ত উর্দু স্কুল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। বৃহৎ মুম্বাই পৌরসভায় ৩৭ হাজার কোটি টাকার বাজেট আছে কিন্তু উন্নয়ন হয়নি। যদি তারা বাজেটকে সঠিকভাবে ব্যবহার করত তাহলে শহরবাসী অনেক বেশি সুবিধা পেতেন।’

ওয়াইসি বলেন, ‘বেহরামবাগ প্রসূতি হাসপাতাল বন্ধ হয়ে গেছে, মুসলিম অধ্যুষিত এলাকার ডিসপেনসারিগুলোরও একই অবস্থা। বৃহৎ মুম্বাই পৌরসভা থেকে মুসলিমরা তাদের অধিকার পাচ্ছে না এবং তাদের উপেক্ষা করা হচ্ছে।’

ওয়াইসি বলেন, তার দল কোনো ধর্মের বিরোধী নয়। তারা শুধু মুসলিমদের বৈধ অধিকারের কথা বলছেন। দল যদি ক্ষমতায় আসে তাহলে মুসলিমদের জন্য আলাদা ফান্ডের ব্যবস্থা রাখা হবে।

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি বলেন, তার দল ৩৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে শিবাজি স্মারক নির্মাণের বিরোধী নয়। শিবাজির সেনাবাহিনী এবং প্রশাসনে মুসলিমদের অবদান ছিল। কিন্তু বন্যা প্রতিরোধের জন্য কী করা হয়েছে? প্রত্যেক বছর মুম্বাইতে যে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় তাকে কীভাবে বন্ধ হবে?

‘মিম’ পার্টি বৃহৎ মুম্বাই পৌরসভায় এই প্রথম লড়তে চলেছে। দলটির নেতারা মনে করছেন, তারা কমপক্ষে ২০ টি আসনে জয়ী হবেন। সম্প্রতি পৌরসভা নির্বাচনে দলটি  ৪০ টি আসন লাভ করেছে।

পার্সটুডে