ট্রাম্পের সঙ্গে নির্ধারিত বৈঠক বাতিল করেছেন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে মেক্সিকোর তিক্ততা বেড়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের যাত্রার শুরুতেই এই তিক্ততা অনেক দূর গড়িয়েছে। সীমান্ত দেয়াল বানানোর খরচ নিয়ে কয়েকদিন থেকে চলা বাকযুদ্ধের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে আগামী সপ্তাহের নির্ধারিত বৈঠক বাতিল করেছেন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট এনরিকে পেনা নিয়েতো।

বৃহস্পতিবার এক ট্যুইট বার্তায় পেনা নিয়েতো বলেন, ‘আমরা হোয়াইট হাউজকে জানিয়ে দিয়েছি যে, আমি আগামী মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকে বসছি না।’

এর আগে এদিনই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক ট্যুইটে বলেছিলেন, মেক্সিকো দেয়াল বানানোর খরচ দিতে না চাইলে বৈঠক বাতিল করা উচিত।

তিনি বলেন, ‘মেক্সিকোর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ৬ হাজার কোটি ডলারের বাণিজ্য ঘাটতি আছে। নাফটা’র (মেক্সিকো ও কানাডার সঙ্গে উত্তর আমেরিকা মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি) শুরু থেকেই এটি একটি একপাক্ষিক চুক্তি… এতে আমেরিকার অনেক চাকরি খোয়া গেছে এবং কোম্পানির ক্ষতি হয়েছে। মেক্সিকো অতি জরুরি সীমান্ত দেয়াল বানানোর খরচ দিতে না চাইলে আসন্ন বৈঠক বাতিল করাটাই ভাল হবে।’

তবে ট্রাম্পের এই ট্যুইট আসার আগে থেকেই প্রাচীর তৈরির প্রতিবাদে তার সঙ্গে বৈঠক বাতিলের জন্য দেশের ভেতরে মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট পেনা নিয়েতোর ওপর চাপ বাড়ছিল।

বৈঠক বাতিলের ব্যাপারে হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি সিয়ান স্পাইসার বলেন, ‘আমরা আগামীতে আরেকটি দিন নির্ধারণের চেষ্টা করব। যোগাযোগের পথটি আমরা খোলা রাখব।’

যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে ‘বিশাল ও দুর্গম’ প্রাচীর নির্মাণের নির্বাহী আদেশে বুধবার সই করেন ট্রাম্প।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনী প্রচারের সময় থেকেই প্রায় দুই হাজার কিলোমিটার দীর্ঘ যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্ত দেয়াল নির্মাণের খরচ মেক্সিকোর কাছ থেকে নেওয়ার কথা ট্রাম্প বলে আসছেন।

বুধবার এবিসি নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারেও ট্রাম্প বলেছেন, মেক্সিকোকে ‘অবশ্যই’দেয়াল নির্মাণের ‘শতভাগ খরচ’বহন করতে হবে।

এর জবাবে পেনা নিয়েতো বলেন, ‘আমি আগেও বলেছি এখনও বলছি, কোনও দেয়ালের জন্য মেক্সিকো কোনও খরচ দেবে না।’ তবে বুধবার রাত পর্যন্তও ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করাকে জরুরি মনে করেননি তিনি।

কিন্তু পরে দেয়ালের খরচ না দিলে ট্রাম্প বৈঠক বাতিলের যে কথা বলেছেন তাতে মেক্সিকোয় ক্ষোভ সঞ্চার হয়েছে। ট্রাম্প ইচ্ছাকৃতভাবেই তার সঙ্গে মেক্সিকো সরকারের আলোচনায় বসার চেষ্টাকে আমলে নিচ্ছেন না বলেই মানছে মেক্সিকোর বিশিষ্ট রাজনীতিবিদরাসহ স্যোশাল মিডিয়াও। এতে দুদেশের এই তিক্ততা আরো অনেক দূর গড়াতে পারে বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা।

সূত্র : বিবিসি ও এবিসি