মুসলিম বিদ্বেষ: টেক্সাসের মসজিদে আগুন, খোলা আকাশের নীচে মুসল্লিদের নামাজ আদায়

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

মুসলিমদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের বিষয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা নির্বাহী আদেশের কয়েক ঘণ্টার মাথায় দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য টেক্সাসের একটি মসজিদে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। আগুনে মসজিদটি সম্পূর্ণ পুড়ে মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। এর কয়েক ঘন্টা আগে সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ট্রাম্প। খবর ফক্স নিউজ ও নিউইয়র্ক ডেইলি নিউজের।

খবরে বলা হয়, স্থানীয় সময় শনিবার ভোরের দিকে কে বা কারা কারা ওই মসজিদটিতে আগুন দেয়। এতে মসজিদের সবকিছু পুড়ে ধ্বংস হয়ে গেছে।

২০০০ সালে নির্মিত টেক্সাসের ভিক্টোরিয়া এলাকার এ ইসলামিক সেন্টার থেকে প্রায় ১০০ মুসলমানকে সহায়তা দেওয়া হতো। আগুন দেওয়ার সময় মসজিদের ইমাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু অসহায়ের মতো চোখের সামনে মসজিদ পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য দেখা ছাড়া কিছুই করতে পারেননি তিনি। এতে যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম কমিউনিটিতে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

মসজিদটির প্রেসিডেন্ট শাহিদ হাশমি বলেন, এটি একটি উপাসনালয়। তদন্তের জন্য এখন সেখানে যাওয়া যাচ্ছে না। আমরা তাই বাধ্য হয়ে মসজিদের বাইরের অংশে প্রার্থনা করছি।

এদিকে, স্থানীয় প্রশাসন এখনো আগুনের সূত্র সম্পর্কে কিছু জানাতে পারেনি। ঘটনার তদন্তে সহায়তা করার জন্য কমিউনিটির সাহায্য চেয়েছে প্রশাসন।

টেক্সাসের এ মসজিদে আগুন বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের আগামী ১২০ দিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে নির্বাহী আদেশ জারির কয়েক ঘণ্টার ভেতরেই এ ঘটনা ঘটলো। প্রাথমিকভাবে এটিকে মুসলমানদের বিরুদ্ধে ‘হেট ক্রাইম’ বলে ধারণা করা হচ্ছে।