ইমাম ও মুয়াজ্জিন নিয়োগ দিবে কাতার : সুযোগ পাচ্ছে বাংলাদেশ

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

কাতার থেকে খালেদ মোহাম্মদ মোশাররফ


অন্যান্য বছরের ন্যায় ২০১৭ সালেও ইমাম-মুয়াজ্জিন নিয়োগ দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে কাতার সরকার। কাতারের ওয়াকফ ও ইসলামবিষয়ক মন্ত্রণালয় এই বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন।
আগ্রহী প্রার্থীদের ইন্টারভিউ নিতে চলতি সপ্তাহে ঢাকায় আসছেন দুই সদস্যবিশিষ্ট প্রাথমিক টিম। টিম মেম্বার হাফেজ ফখরুল হুদার সঙ্গে কথা বলে এই বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছি।

হাফেজ ফখরুল হুদা বলেন, ১৫ ফেব্রুয়ারি সকাল সাতটা থেকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর কেন্দ্রীয় মসজিদে (কবরস্থান) ইন্টারভিউ শুরু হবে।তিনি বলেন, ‘আমি ও সুদানি বংশোদ্ভূত আরেকজন কর্মকর্তা ঢাকায় প্রাথমিক বাছাই ইন্টারভিউ নেব। এরপর মন্ত্রণালয়ের বিশেষ টিম ঢাকায় গিয়ে চূড়ান্ত ইন্টারভিউ নেবে। এবার কোনো নির্দিষ্ট সংখ্যা বেঁধে দেওয়া নেই। ফলে আশা করছি  আগের চেয়ে বেশিসংখ্যক ইমাম-মুয়াজ্জিন কাতারে নিয়োগ পাবেন।’

কাতার ওয়াকফ ও ইসলামবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে ইমাম-মুয়াজ্জিন নিয়োগ ইন্টারভিউতে অংশগ্রহণে আগ্রহী প্রার্থীদের জন্য বেশ কিছু শর্ত বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে আগ্রহী প্রার্থীকে অবশ্যই স্বীকৃত আলেম অথবা ইসলামি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে পাওয়া প্রশংসাপত্র জমা দিতে হবে। সর্বনিম্ন ২০ থেকে সর্বোচ্চ ৪৫ বছর বয়সী হতে হবে। অবশ্যই কোরআনে হাফেজ হতে হবে এবং তাজবিদ সহ কোরআন তিলাওয়াত হতে হবে। পাশাপাশি সুন্দর কণ্ঠ ও ভালো তিলাওয়াতের দক্ষতা থাকতে হবে। এ ছাড়া যাঁদের জামেয়া বা বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ডিগ্রি রয়েছে, তাঁদেরও অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।
আবেদনকারীকে অবশ্যই পাসপোর্ট অথবা জন্মসনদের সঙ্গে দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি জমা দিতে হবে। পাশাপাশি উত্তীর্ণ প্রার্থীকে তাঁর শিক্ষাগত যোগ্যতার সব সনদ যথাযথ কর্তৃপক্ষ থেকে সত্বায়ন  করে জমা দিতে হবেসবারই মৌখিক ইন্টারভিউ নেওয়া হবে। মৌখিক ইন্টারভিউ ও সাক্ষাৎকারে উত্তীর্ণ হওয়ার পর প্রার্থীকে জীবনবৃত্তান্ত কাগজ ও স্বাস্থ্যসনদ জমা দিতে হবে।
বর্তমানে কাতারে কয়েক শ মসজিদে বাংলাদেশি ইমাম-মুয়াজ্জিন সুনাম ও সাফল্যের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন।