আজই নির্ধারণ করুন আপনার সন্তানের শিক্ষাবিন্যাস

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |



মাওলানা তানভীর বিন আব্দুস সালাম

ইফতা : হাটহাজারী মাদরাসা


আপনার সন্তানকে হাফেজ,মাওলানা বা মুফতী বানানো আপনার জন্য জরুরী নয়। আল্লাহর বিধান আর রাসূল সঃ এর আদর্শ অনুযায়ী চলার জন্য যতটুকু শরয়ী জ্ঞানের প্রয়োজন সেটুকু শিক্ষা দেওয়াই আপনার কর্তব্য। এই দায়িত্বটুকু পূর্ণভাবে পালন করে আপনি আপনার ছেলেকে স্কুলশিক্ষা দিয়ে তাকে দীক্ষিত করতে পারেন জাগতিক শিক্ষায়। তবে সতর্ক ও সজাগ থাকা চাই তার চালচলন ও বন্ধুমহল সম্পর্কে। কারণ দুশ্চরিত্রদের সংস্পর্শে উত্তম আদর্শের অধিকারী ও সুবোধ ছেলেরাও হারিয়ে যায় নীতিহীনতায়। ডুবে যায় অসংখ্য মেধা অপরাধের নীল জলে।

মাদরাসার প্রতি আপনার ছেলেটির আগ্রহ একদম নেই অথচ আপনি তাকে হাফেজ বা মাওলানা বানানোর প্রবল ইচ্ছা আর আশা লালন করছেন মনে। স্কুল থেকে নিয়ে তাকে মাদরাসায় দিয়েও এসেছেন কিন্তু তার মন ছুটে যায় স্কুলে,স্কুলের পাঠে। মাদরাসার পড়া-লেখা তার ভালো লাগে না,কেবল সুযোগ খুঁজে পালিয়ে মাদরাসার সীমা অতিক্রম করার। তো আপনার সন্তানের ভবিষ্যৎ দোদুল্যমান। না স্কুলশিক্ষায় সে সফল হতে পারছে, না মাদরাসার শিক্ষায়। একূল ওকূল দু’টোই হারানোর সম্ভবনা সুদৃঢ় । অবশ্য আপনার আশা ও চেষ্টা ফলশূন্য হবে না৷ আপনি প্রচেষ্টা আর নেক আশার প্রতিদান আল্লাহর নিকট পেয়ে যাবেন ইনশাআল্লাহ৷

ইংরেজির প্রতি আপনার ছেলেটির আকর্ষণ বেশী,ইংরেজি শব্দ পেলেই তার মাঝে মনযোগের জোয়ার আসে তো আপনি তাকে ইংরেজী মিডিয়ামে পড়ার সুযোগ দিন৷ বিজ্ঞানের প্রতি আপনার সন্তানের মনযোগ সীমাতীত,বিজ্ঞান বিষয়ক কিছু পেলেই চারপাশের সব সে ভুলে যায় তো আপনি তাকে এই শাস্ত্রে অধ্যয়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। সারকথা শিক্ষার যে শাখায় আপনার সন্তানের আগ্রহ আর আকর্ষণ বেশী সেই শাখাতেই তাকে রাখুন। এর দ্বারাই আপনার সন্তান সক্ষম হবে নির্বাচিত শাস্ত্রে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করতে, জাতির সামনে কিছু তুলে ধরতে,জাতির নড়বড়ে মেরুডণ্ডের দুর্বলতা দূর করতে।

আর যদি তার পছন্দ আর আগ্রহের বিপরীত শাখা আপনি নির্বাচন করেন তাহলে তার একটি সার্টিফিকেট অর্জন হবে হয়ত কিন্তু বিজ্ঞ আর দক্ষদের বহু দূরে হবে তার অবস্থান! না হতে পারবে আপনার নির্বাচিত শাখায় পারদর্শী না তার পছন্দের শাখায়। কাগুজে সার্টিফিকেট তো কত ছেলেরই আছে। শহর-নগরের প্রায় সব গলিতেই সার্টিফিকেট নিয়ে ঘুরছে কত সন্তান চাকরীর সন্ধানে! তাদের কত জনই বা যথাযথ পড়ে-লিখে সার্টিফিকেট পেয়েছে ?
কাজেই আজই নির্ধারণ করুন আপনার সন্তানের শিক্ষাবিন্যাস। যাচাই করুন তার আগ্রহের বিষয়। এরপর সেই বিষয়েই তাকে উৎসাহ দিন,সহযোগিতা করুন সেই বিষয়ের শিক্ষাগ্রহণের সকল পথে।