পরিস্থিতির অবনতি ঘটার পূর্বেই সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে মূর্তি অপসারণ করুন: ড. ঈসা শাহেদী

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

পরিস্থিতির  অবনতি ঘটার পূর্বেই সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে মূর্তি অপসারণ করার জন্য আহবান জায়েছেন ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের আমির ড. মওলানা মুহাম্মাদ ঈসা শাহেদী। তিনি বলেন , ষড়যন্ত্রকারীরা সুপ্রিম কোর্টের সম্মুখে জাতীয় ঈদগাহের সমান্তরালে গ্রিক দেবির মূর্তি স্থাপন করে দেশের তওহীদী জনতার বিরুদ্ধে যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে, পরিস্থিতির অবনতি ঘটার আগে তা সরিয়ে ফেলার জন্য আমরা সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

আজ সকালে সংগঠনের পুরানা পল্টন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার অধিবেশনে স্বাগত ভাষণে িএই আহবান জানান।

তিনি বলেন, কোনো মহলের দাবি বা কারো সাথে সলা পরামর্শ ছাড়াই সুপ্রিম কোর্টের ছুটিকালীন সময়ে জনগণের আস্থার কেন্দ্রটিতে গ্রিক দেবির মূর্তি স্থাপন এ দেশের জাতীয় ঐতিহ্য, ধর্মীয় চেতনা ও বিশ্বাসের উপর চরম আঘাত। সরকারের বুঝা উচিত যে, অতিসত্তর ঐ মূর্তি অপসারণ করা না হলে সামনে রমযান ও ঈদে লাখ লাখ মুসল্লি জাতীয় ঈদগাহে মূর্তি সামনে নিয়ে ঈদের নামায পড়বে না।

মজলিসে শূরা অধিবেশনে আরো বক্তব্য রাখেন নায়েবে আমির প্রিন্সিপাল মুহাম্মদ শওকাত হোসেন, মওলানা মুহাম্মদ রুহুল আমীন, তালাবার সাবেক নেতা মওলানা আবদুল কাদের খান,জয়েন্ট সেক্রেটারী অধ্যাপক মোস্তফা তারেকুল হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা সাখাওয়াত হুসাইন, ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মাহফুজুর রহমান, রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা কাজী আবু বকর সিদ্দিক, ঢাকা মহানগরী আমির মোস্তফা বশীরুল হাসান, কেন্দ্রীয় অফিস সম্পাদক মাওলানা কাজী আবু বকর সিদ্দিক।

ড.শাহেদী আরও বলেন, এয়ারপোর্টের সম্মুখস্থ সড়ক দ্বীপে লালন মূর্তি স্থাপন করা হয়েছিল। হজ যাত্রীদের যাতে মূর্তির সামনে দিয়ে হজে যেতে না হয়, তার জন্য ঐ মূর্তি অপসারণ করা হয়েছিল সরকারী উদ্যোগে। আশা করি, হাই কোর্টের মাজারে শায়িত আল্লাহর ওলী, জাতীয় ঈদগাহ ও বৃহত্তর জনগণের আস্থার প্রতীক হাই কোর্টের সম্মান, অনুভূতি ও ভাবমূর্তির কথা বিবেচনা করে সরকার অতিসত্তর মূর্তিটি অপসারণ করবেন এবং রমযান ও ঈদ পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন না।