অবসরের ঘোষণা দিলেন শহীদ আফ্রিদি

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

অবশেষে অবসরের ঘোষণা দিলেন শহীদ আফ্রিদি। অনেকটা অভিমান নিয়েই জানিয়ে দিলেন, পাকিস্তানের জার্সি গায়ে চেপে আর কখনো মাঠে নামবেন না তিনি। কাল রাতে পাকিস্তান সুপার লিগে করাচি কিংসের কাছে ৯ রানে হেরে যায় তাঁর দল। ২৮ বলে ৫৪ রানের স্মরণীয় ইনিংস খেলেন আফ্রিদি। ম্যাচ-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনেই নিজের অবসরের কথাটা জানিয়ে দেন তিনি। পাকিস্তান জাতীয় দলের কিংবদন্তি এই অলরাউন্ডার বলেন, ‘আমার ভক্তদের কথা ভেবে লিগ ক্রিকেটে আরো দুই বছর খেলব, তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে এ মূহূর্তে বিদায় জানাচ্ছি।’ অবসরের পরের ভাবনা বিষয়ে আফ্রিদি বলেন, ‘দেশ ও দলের জন্য সব সময় নিজেকে উজাড় করে খেলেছি আমি। তবে এখন আমার কাছে আমার ফাউন্ডেশনটা অনেক কিছু। এটাকে আরো বড় করতে চাই আমি।’

১৯৯৬ সালে কেনিয়ার বিপক্ষে নাইরোবিতে অভিষেক হয় সাহেবজাদা মোহাম্মাদ শহীদ খান আফ্রিদির। এরপর ২০১১ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের হয়ে ২৭টি টেস্টে ম্যাচে ৩৭ গড়ে ১,৭১৬ রান করেন এই ক্রিকেটার। ২০১০ সালে ক্রিকেটের ‘মক্কা’ খ্যাত লর্ডসে শেষ টেস্ট খেলেন তিনি। ২০১৫ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালটাই তাঁর জীবনের শেষ ম্যাচ ছিল। পূর্ব ঘোষণা মতে, বিশ্বকাপের পরেই ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে অবসর নেন এই ক্রিকেটার। ৩৯৮ ওয়ানডেতে ৮,০৭৪ রান করেন এই ফরম্যাটের সবচেয়ে সফল এই অলরাউন্ডার। বল হাতে নিয়েছেন ৩৯৫ উইকেট।

গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শেষে ক্রিকেটের সব ফরম্যাট থেকে অবসর নেওয়ার কথা ছিল আফ্রিদির। দল ব্যর্থ হলেও অবসরের ঘোষণা দেননি তিনি। তবে এর পর তাঁকে আর দলে রাখেননি নির্বাচকরা। পাকিস্তানের হয়ে ৯৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ১,৪০৫ রান করেছেন তিনি। বল হাতে নিয়েছেন ৯৭ উইকেট।

ওয়ানডেতে আট হাজার রান ও সাড়ে তিনশর বেশি উইকেট নেওয়া একমাত্র ক্রিকেটার পাকিস্তানের এই অলরাউন্ডার। কেবল তাই নয়, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে হাজার রান ও ৯০ উইকেট নেওয়া একমাত্র ক্রিকেটারও তিনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সবচেয়ে বেশি ছয় মারার রেকর্ডটি এখনো আফ্রিদির দখলে।