শাপলা ট্রাজেডি নিয়ে আলোচনাসভা; ‘সমাজে নাস্তিক শব্দ ঘৃণিত পরিচয়ে পরিণত হয়েছে’

শাপলা ট্রাজেডির ৪র্থ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে গতকাল (৬ মে) ইসলামি তারুণ্যের দাওয়াতি -বুদ্ধিবৃত্তিক সংগঠন ইসলামি রেনেসাঁর উদ্যোগে শাপলা ট্রাজেডির ৪র্থ বর্ষ উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়৷

‘হেফাজতে ইসলামের সংগ্রাম, সেক্যুলার অপপ্রচার ও নাগরিক ভাবনা’ – শীর্ষক এই আলোচনাসভায় বক্তারা বলেন, আপমার জনগণের ধর্মীয় সেন্টিমেন্টের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন হেফাজতে ইসলাম, উগ্র ইসলামবিদ্বেষী ধর্মনিরপক্ষবাদের বিপরীত যে আদর্শিক মেরুকরণ তৈরি করেছে, তা বাঙ্গালি মুসলমানের ঈমানী সংগ্রামের পথচলায় আগামী প্রজন্মের জন্য মাইলফলক রচনা করে দিয়েছে ৷

আজ সমাজে নাস্তিক ও সেক্যুলার শব্দ একটি ঘৃণিত পরিচয়ে পরিণত হয়েছে৷ অন্যদিকে বাঙ্গালি মুসলিম সমাজে আস্তিক্যবাদী তাওহীদি শিহরণ জাগ্রত হয়েছে৷ সেই জাগরণের আলামতগুলো স্পষ্ট দেখতে পেয়ে সেক্যুলার শিবির হেফাজতে ইসলামকে টার্গেট করার মাধ্যমে ইসলামের বিরুদ্ধে যুদ্ধের উন্মাদনা সৃষ্টির পায়তারায় লিপ্ত হয়ে পড়েছে৷

বক্তারা বলেন, ইসলামী মূল্যবোধের পক্ষে রাজনৈতিক দল সমূহ ও প্রশাসনের নূন্যতম সহানুভূতি বরদাস্ত করতে পারছেনা ইসলামবিদ্বেষী চক্র ৷

আলোচকবৃন্দ হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন; ইসলাম বনাম নাস্তিক্যবাদের দ্বন্দ্বের প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ এক গভীর চক্রান্তের সময় পার করছে ৷ অতি উৎসাহী এই চক্রবাজ গোষ্ঠি নানা উসকানি ও ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে দেশে এক ভয়ানক অরাজক পটভূমি তৈরির ফন্দি করে যাচ্ছে ৷ এই বিষয়ে সর্বাগ্রে সরকারের সতর্ক থাকা উচিৎ ৷ এমন কি তারা ইসলামী জুজুর ভয় দেখিয়ে পশ্চিমা বিশ্বকে প্ররোচিত করে বাংলাদেশে সাম্রাজ্যবাদী আগ্রাসনের ভূমিকা রচনা করে যাচ্ছে ৷

আলোচকবৃন্দ বলেন, হেফাজতের ১৩ দফায় কোন রাজনৈতিক উচ্চাভিলাষ নেই৷ এতোদসত্ত্বেও উগ্র সেক্যুলার মিডিয়া ‘হেফাজত তান্ডব’র কল্পকাহিনী রচনার মাধ্যমে আলেম-ওলামাদের নিষ্কলুষ চরিত্রের উপর সন্ত্রাসের তকমা লাগানোর গর্হিত প্রয়াস চালাচ্ছে ৷ এটা নিতান্তই কাপুরুষোচিত ও কান্ডজ্ঞানহীন কাজ বৈ কিছু নয় ৷

উক্ত আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রবীণ আলেমে দ্বীন, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ, হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমীর আল্লামা মুফতি ইজহারুল ইসলাম চৌধুরী। সভাপতিত্ব করেন নেজামে ইসলাম পার্টির সহসভাপতি আব্দুর রহমান চৌধুরী।
এতে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন ‘ইসলামি রেনেসাঁ’র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মুফতি হারুন ইজহার চৌধুরী। অন্যন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় কবিতা মঞ্চের সভাপতি কবি মাহমুদুলল হাসান নিজামী, বিশিষ্ট গবেষক মুফতি এনামুল হক মাদানি, মাওলানা কামরুল কাসেমী, মাওলানা ফয়জুল্লাহ ইজহার প্রমূখ ব্যক্তিবৃন্দ।


Notice: Undefined index: email in /home/insaf24cp/public_html/wp-content/plugins/simple-social-share/simple-social-share.php on line 74