ঘামাচি থেকে রক্ষা পাওয়ার উপায়

গ্রীষ্ম তার দাবদাহ বাড়িয়েই চলেছে | আর এই যন্ত্রণার উপর যুক্ত হয়েছে চর্ম রোগের সমস্যা | সব থেকে মানুষ গরমে ভোগেন ঘামাচি সমস্যায় | ঘামাচি যেন কেড়ে নেয় সামান্য স্বস্তিটুকুও | চিটপিট্ ভাব, চুলকানি, আর সারা গায়ে মুখে গোটা | বিরক্তিকর অনুভূতির সঙ্গে ভাটা ফেলে সৌন্দর্যেও | ঘামাচির সমস্যা হতে পারে শিশু থেকে বৃদ্ধ সকলেরই |

ঘামাচির কারণ :
উষ্ণ আদ্র পরিবেশে ঘাম বেশি হয় | আর ঘামগ্রন্থির মুখ কোন কারনে বন্ধ হয়ে গেলে ত্বকের বহিরাবরণের নিচে ঘাম আঁটকে পড়ে এবং ঘামাচি তৈরি করে। ঘামের সাথে ময়লা, ত্বক থেকে বেরোনো তৈলাক্ত পদার্থ ত্বকের মৃত কোষ, ব্যাকটেরিয়া ইত্যাদি মিশে ঘামগ্রন্থির মুখ বন্ধ করে দেয় এবং ঘামাচির সৃষ্টি করে |

 

ঘামাচি থেকে মুক্তি পেতে  :
একটি নির্দিষ্ট সময়ের পর ঘামাচি এমনিতেই কমে যায় | কিন্তু রেখে যায় মরা কালো চামড়া | সঠিকভাবে পরিচর্যা করলে স্বাভাবিকের চাইতে কম সময়ে ত্বক থেকে ঘামাচি দূর করা সম্ভব | এছাড়াও কিছু সতর্কতা অবলম্বন করলে ঘামাচি প্রতিরোধ করাও সম্ভব | তার জন্য খেয়াল রাখতে হবে যে বিষয়গুলো সেগুলো হলো :
#  যতটা সম্ভব রোদ এড়িয়ে চলুন | রোদে শরীরের ঘাম শরীরে শুকিয়ে যায় | তাই ঘরের বাইরে যথা সম্ভব ছায়ায় থাকার চেষ্টা করুন | সাথে ছাতা রাখুন এবং রোদে ছাতা ব্যবহার করুন |
# ঢিলেঢালা এবং হালকা রঙের সুতি পোশাক পড়ুন, এতে কম গরম লাগবে এবং পোশাকের ভেতর পর্যাপ্ত বাতাস চলাচলের সুযোগ পাবে, ফলে ঘাম কম হবে এবং ঘামের পরিমান কমবে |
#  আঁটসাঁটে পোশাক এড়িয়ে চলুন, এতে ঘামাচির চুলকানি কম অনুভব করবেন |
# প্রতিদিন পর্যাপ্ত জল পান করুন | সঠিক মাত্রায় জল পান শরীরের ঘাম নিয়ন্ত্রণে রাখে |
# শরীর ও ত্বক ঠাণ্ডা ও পরিস্কার রাখার চেষ্টা করুন | ঠাণ্ডা জল দিয়ে স্নান করুন | এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল সাবান ব্যবহার করুন | প্রতিদিন একধিক বার স্নান করতে পারেন |
# গায়ে তৈলাক্ত ক্রিম বা লোসন ব্যবহার করবেন না |
# বডি পাউডার কম ব্যবহার করুন | যদি বডি পাউডার বা ঘামাচি নাশক পাউডার ব্যবহার করেন তবে তা স্নানের পর হালকা করে গায়ে লাগান | বেশি ব্যবহার করবেন না | না হলে তা ঘামগ্রন্থির মুখ আটকে দিয়ে ঘামাচির সৃষ্টি করে |
# বডি পাউডারের পরিবর্তে পারফিউম বা বডি স্প্রে ব্যবহার করতে পারেন |
# রাতে ঘুমনোর আগে গা ধুতে পারেন বা ভেজা গামছা বা তোয়ালে দিয়ে গা পরিষ্কার করতে পারেন |
# ঘুমানোর সময় ঘরে পর্যাপ্ত হওয়া চলাচলের রাস্তা রাখুন |
প্রয়োজনে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন |

Notice: Undefined index: email in /home/insaf24cp/public_html/wp-content/plugins/simple-social-share/simple-social-share.php on line 74