ইসলাম নারীদের সবচেয়ে বেশি অধিকার দিয়েছে : মুফতি ফয়জুল করীম

(ফাইল ছবি)

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম বলেছেন, ইসলামী তাহজীব-তামাদ্দুন ও ইসলামী শিক্ষা থেকে দূরে সরে থাকার কারণে সর্বত্র নারী নির্যাতন, নারী ধর্ষণ, অপহরণ, ইভটিজিং মহামারি আকার ধারণ করেছে। পর্দা নারীর ভূষণ, পর্দা ছেড়ে দিয়ে সমান অধিকারের কথা বলার পর থেকে নারীদের প্রতি বৈষম্য মারাত্মক আকার ধারণ করছে। ইসলাম সবচেয়ে বেশি নারীদের অধিকার দিয়েছে। নারীদের সমান অধিকার নয়, অগ্রাধিকারে বিশ্বাসী। কাজেই ইসলাম তথা কুরআন বর্ণিত নারী অধিকার বাস্তবায়ন করলে নারীরা সবচেয়ে নিরাপদ থাকতে পারবে। এছাড়া যত অধিকারের কথা বলা হোক তাতে সত্যিকারের নারী অধিকার প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয়।

গতকাল রাজধানীর মুহাম্মদপুরের সাদেকখান সড়কের পুলপাড় অনুষ্ঠিত ইসলামী মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। শেখ মুহাম্মদ হোসেন খোকনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মহাসম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন মাওলানা ওমর ফারুক নূরী, মাওলানা নজরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুফতি নূরুল আমীন, মুফতি ফরীদুদ্দিন মাসউদ, মুফতি মাহমূদুল হাসান, মুফতি তাফাজ্জুল হুসাইন, মুফতি রেজাউল করীম, মৌলভী মহিউদ্দিন প্রমুখ।

তিনি বলেন, শিরকমুক্ত ইবাদত ছাড়া আল্লাহর কাছে ইবাদত কবুল হয় না। তাই শিরকমুক্ত সমাজ গঠনে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, কতিপয় ভ্রান্ত আকীদায় বিশ্বাসী লোকজন মানুষকে বিপথে নিয়ে যেতে পীর মাশায়েখদের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত হচ্ছে। তিনি এসকল ভ্রান্ত বিশ্বাসীদের থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানান।

মুফতি ফয়জুল করীম বলেন, নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুসলমানদের পাশে দাড়াতে প্রয়োজনে সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় সাধারণ মানুষকে ত্রাণ কার্যক্রম চালানোর সুযোগ করে দিতে হবে। এদিকে বিকেলে জিগাতলাস্থ সাহাবিয়্যাত রা. মহিলা মাদরাসার এক আলোচনা সভায়ও মুফতি ফয়জুল করীম প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। মাদরাসার প্রিন্সিপাল মুফতি ফরিদুদ্দীন মাসউদের সভাপতিত্বে এবং হাফেজ মাওলানা আরিফুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন মুফতি আব্দুর রাজ্জাক।