রোহিঙ্গা প্রশ্নে জাতিসংঘের ভুমিকা রহস্যজনক : অধ্যক্ষ ইউনুছ আহমাদ

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

ফাইল ছবি

ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা আহমাদ বলেছেন, রোহিঙ্গা মুসলমান প্রশ্নে জাতিসংঘের ভুমিকা রহস্যজনক। তিনি বলেন, জাতিসংঘের কোন আদেশ কোন দেশ না মানলে তার বিরুদ্ধে কঠোর অ্যাকশন নেয়ার ব্যবস্থা থাকলেও কেবলমাত্র রোহিঙ্গারা মুসলমান হওয়ায় জাতিসংঘ কঠোর কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। যা বিশ্ব মুসলিমকে মর্মাহত ও ব্যথিত করেছে।

আজ বিকেলে পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর এক সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক হাফেজ মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন ও মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, সহকারী মহাসচিব আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম, দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রকৌশলী আশরাফুল আলম, যুবনেতা কেএম আতিকুর রহমান, প্রচার সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, মাওলানা মোহাম্মদ নেছার উদ্দিন, প্রকৌশলী শরীফুল ইসলাম, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, এডভোকেট লুৎফুর রহমান শেখ, প্রিন্সিপাল মুফতি কেফায়েতুল্লাহ কাশফী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, মু. বরকত উল্লাহ লতিফ, আলহাজ্ব নাজিম উদ্দিন প্রমুখ।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা মুসলমানদের ফিরিয়ে নিতে মায়ানমার সামরিক জান্তাকে বাধ্য করতে কূটনৈতিক তৎপরতা আরো জোরদার করতে হবে। পাশাপাশি বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া শরণার্থীদের মানবিক বিপর্যয় রোধ ও ত্রাণ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং নিবন্ধিত ও অনিবন্ধিত রোহিঙ্গাদের ত্রাণপ্রাপ্তি নিশ্চিতে আরো সেনা মোতায়েন করতে হবে। বান্দরবানসহ যেসব এলাকায় এখনো ত্রাণ পৌঁছছে না সেসব স্থানে রোহিঙ্গা মুসলিমদের মাঝে জরুরী ভিত্তিতে ত্রাণ তৎপরতা শুরু করতে হবে। বাংলাদেশে আশ্রয় গ্রহণকারী রোহিঙ্গা মুসলমানদের দুর্দশা করুণ ও অবর্ণনীয়। তাদের ৮০ শতাংশই বিধবা পিতৃহীণ শিশু। তিনি মানবিক দায়িত্ববোধ থেকে মজলুম রোহিঙ্ঘা শরণার্থীদের সাহায্যে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।