বেফাক ছাড়া ৫ বোর্ডের মিটিং অনুষ্ঠিত ; প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করার সিদ্ধান্ত

বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ ছাড়া সম্মিলিত কওমি শিক্ষাবোর্ড আল হাইআতুল উলআ লিল জামিয়াতিল কওমিয়ার সদস্য পাঁচ বোর্ডের শীর্ষ বৈঠক আজ চট্টগ্রামের শুলকবহর মাদরাসায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন, ইত্তেহাদুল মাদারিসের মহাসচিব আল্লামা আবদুল হালিম বোখারি।

বৈঠকে পাঁচ বোর্ডের শীর্ষ দায়িত্বশীলগণ ৪টি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে আল্লামা আবদুল হালিম বোখারি স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

সিদ্ধান্তগুলো হলো-

  • ১. সভার সকল সদস্য ঐক্যমত পোষণ করেন যে বিগত ১০ই ডিসেম্বর ২০১৬ইং তারিখে দারুল উলুম মঈনুল ইসলামা হাটহাজারী মাদরাসায় অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্ত ‘শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর নেতৃত্বে মাদারিসে কওমিয়ার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ঠ ও স্বকীয় অবস্থান বজায় রেখে কোনরূপ সরকারি কর্তৃপক্ষ ও কমিশন গঠন এবং নিয়ন্ত্রণ ছাড়া কওমি শিক্ষা পদ্ধতি, সিলেবাস ও মাদরাসা পরিচালনায় যে কোনরূপ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ হস্তক্ষেপ ছাড়া কাওমি মাদরাসাসমূহের দাওরায়ে হাদিসের সনদ ইসলামিয়াত ও আরাবিয়াতের উপর এম.এ-এর মান প্রদান করা হলে সনদের মান গ্রহণের উপর একমত পোষণ করেন’’ এর উপর ঐক্যমত ও অটল থাকবেন। এর পরিপন্থী কোন কিছু মেনে নিবেন না।

  • ২. মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী যে, ‘আপনারা যে কারিকুলাম ও নীতি প্রনয়ণ করবেন তার উপর ভিত্তি করেই আমরা সনদের মান দিব’এর উপর আমরা অটল থাকব।

  • ৩. দারুল উলুম দেওবন্দের উসূলে হাস্তেগানা’ তথা অষ্ট মৌলনীতির আলোকে আমরা সনদের মান চাই। এর বিপরীত কোন কিছু আমরা গ্রহণ করব না।

  • ৪. উপরোক্ত বিষয় ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করারও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

পাঁচ বোর্ড হলো-

১. ইত্তেহাদুল মাদারিস বাংলাদেশ।

২. তানযীমুল মাদারিসিল কাওমিয়া বাংলাদেশ।

৩. বেফাকুল মাদারিসিল ইসলামিয়া গওহরডাঙ্গা।

৪. আযাদ দ্বীনি এদারায়ে তা’লীম সিলেট।

৫. জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড বাংলাদেশ।