জেনে নিন প্রাকৃতিকভাবে শিশুর পেটের কৃমি দূর করার কিছু উপায়

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

আমাদের স্বাস্থ্য সমস্যার মধ্যে কৃমি একটি সাধারণ সমস্যা। তুলনামূলকভাবে শিশুরাই এ সমস্যায় বেশি আক্রান্ত হয়। অনেক সময় শিশুদের খাদ্যে অরুচি, পাতলা পায়খানা, বমি বমি ভাব, পায়খানার রাস্তায় চুলকানি ইত্যাদি সমস্যাগুলো প্রায়ই শিশুদের মাঝে দেখা যায়। এগুলো কৃমির লক্ষণ।

তবে যেকোনো বয়সের মানুষের কৃমি হতে পারে। যদিও বাজারে কৃমিনাশক অনেক ওষুধ রয়েছে, তবে একটু সচেতন হলে ঘরোয়া উপায়েই কৃমি দূর করা সম্ভব।

তাহলে জেনে নিন প্রাকৃতিকভাবে কৃমি দূর করার কিছু উপায়।

রসুন কৃমি দূর করতে সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে ২ থেকে ৩ কোয়া রসুন খেলে উপকার পাবেন। আবার আধ কাপ পানিতে দু’টি রসুনের কোয়া দিয়ে সিদ্ধ করে এক সপ্তাহ নিয়মিত খেলে দেখবেন কৃমি সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

কৃমি সমস্যা দূর করতে নারিকেল বেশ কার্যকরী। প্রতিদিন সকালে এক টেবিল চামচ নারিকেল কুচি খান। ৩ ঘণ্টা পর এক গ্লাস গরম দুধের সঙ্গে দুই টেবিল চামচ ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে খান।

প্রতিদিন দুটি করে লবঙ্গ খান। এর অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল উপাদান পেটের কৃমি ধ্বংস করে।

দুই টেবিল চামচ মিষ্টি কুমড়োর বীচির গুঁড়া তিন কাপ পানিতে আধ ঘণ্টা সিদ্ধ করুন। এরপর প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এই কুমড়ো বিচির পাঁচন এক সপ্তাহ খেলে দূর হয়ে যাবে কৃমি সমস্যা।

প্রতিদিন খালি পেটে গাজর খান। কিছুদিনের মধ্যে কৃমি কমে যাবে।

এক চা চামচ কাঁচা হলুদের রসের সঙ্গে এক চিমটি লবণ মিশিয়ে নিন। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে পান করুন। পাঁচ দিনের মধ্যে উপকার পাবেন।

আনারসের ব্রোমেলিন এনজাইম আপনার কৃমিকে ধ্বংস করে দেবে। নিয়মিত কয়েক দিন আনারস খান।

দুই আউন্স ভিনিগারের মধ্যে আট আউন্স পেঁপে মিশিয়ে রাখুন। এটা টানা চার দিন খেলে কমে যাবে কৃমি।


rtv