পশ্চিমা শক্তি প্রতারণায় পরিপূর্ণ: এরদোগান

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

পশ্চিমা শক্তিকে প্রতারণাপূর্ণ ও কপটাচারী বলে মন্তব্য করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান।

তিনি বলেন, সাইপ্রাস জয়ের মাধ্যমে আমরা তাদের এক বাহু বিচ্ছিন্ন করে তাদের প্রতারণার জবাব দিয়েছিলাম।

বুধবার তুর্কি পার্লামেন্টে দেয়া ভাষণে এরদোগান এই মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘পশ্চিমা শক্তি প্রতারণায় পরিপূর্ণ এবং নিষেধাজ্ঞা আরোপের মাধ্যমে তারা ক্রমাগতভাবে তুরস্কের ওপর নানা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে এবং তুরস্কের বিরুদ্ধে বারবার তারা ভুল পদক্ষেপ নিচ্ছে।

তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘তবে, এই সমস্যাগুলো তুরস্ক অবশ্যই কাটিয়ে ওঠতে সক্ষম হবে।’

লিপন্তো বা নফপাকটাস যুদ্ধের দুই বছর পরে ১৫৭৩ সালে ভেনিসের রাষ্ট্রদূতের কাছে লেখা সুকুলো মেহমেদ পাশার চিঠির এক বাণী উদ্ধৃতি করে এরদোগান বলেন, ‘লিপন্তোকে পরাজিত করার মাধ্যমে আমাদের নৌবাহিনী সাইপ্রাস জয় করেছিল। সাইপ্রাস জয়ের মাধ্যমে আমরা পশ্চিমাদের এক বাহু বিচ্ছিন্ন করেছিলাম। পক্ষান্তরে তারা কেবল আমাদের একটি লোম কাঁটতে পেরেছিল।’

তিনি আরো বলেন, ‘যাইহোক, পশ্চিমারা জানে যে একটি বাহু একবার কাটা হলে তা আর প্রতিস্থাপন করা যাবে না কিন্তু লোম যত বেশি কাটা হবে তা ততবেশি ঘন হবে।’

নফপাকটাস বা লিপানতোর যুদ্ধ পশ্চিম গ্রীস শহরের ভিনিসীয় নাম ছিল। ১৫৭১ সালের ৭ অক্টোবর এই যুদ্ধ সংঘঠিত হয়। ভেনিস সাম্রাজ্য এবং স্প্যানিশ সাম্রাজ্যের নৌবহর অটোমান সম্রাজ্যের নৌবহরের কাছে বিশাল পরাজয় বরণ করে।

পার্লামেন্টে দেয়া ভাষণে এরদোগান তুরস্কের সকল রাজ্য থেকে সন্ত্রাসবাদী ফেতুল্লাহ সংগঠনের (ফেটো) সদস্যদের যাবতীয় প্রতিষ্ঠানসমূহ নিমূর্লের অঙ্গীকার করেন।

তিনি বলেন, ‘আইনের সীমার মধ্য থেকে ক্ষমতাসীন একে পার্টি প্রয়োজনীয় সবকিছুই করবে। এতে আমরা পিছ পা হবো না।’

এরদোগান বলেন, ‘আমরা তাদের রাষ্ট্রীয় ষড়যন্ত্রের প্রক্রিয়া মুছে ফেলব, আমরা এটি পুরোপুরি নির্মল করব। তাদেরকে নিস্ক্রীয় করে দেয়া ছাড়া আমাদের রাষ্ট্র ভালভাবে কাজ করবে না।’

সূত্র: গ্রিকরির্পোটার ডটকম