ব্রিটেনে দুই বাংলাদেশি তরুণীর বিস্ময়কর সাফল্য

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


ব্রিটেনে দুই বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণী বিস্ময়কর সাফল্য দেখিয়েছেন। তাঁরা হলেন শরিফাহ রহমান ও সেলিনা বেগম।

শরিফাহ রহমান। বাংলাদেশে তাঁর বাড়ি সিলেটের সুনামগঞ্জের বরমরা গ্রামে। মাত্র ১৮ বছর বয়সে ব্রিটেনে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে তিনি রীতিমতো চমকে দিয়েছেন সবাইকে।

গত সপ্তাহে অনুষ্ঠিত ব্রিটেনের নর্থ ইস্ট ইংল্যান্ডের ডারলিংটন বার কাউন্সিলের উপ নির্বাচনে তিনি ৪৪ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার এ বিজয়ে উৎফুল্ল সেখানকার বাঙালি কমিউনিটির লোকজন।

শরিফাহ রহমান স্থানীয় রেড হল ও লিংফিল্ড ওয়ার্ড থেকে লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন টোরি পার্টিও জোনাথন ডালস্টন।

এছাড়াও ছিলেন লিবারেল ডেমোক্রেটস দলের হ্যারি লংমুর, গ্রিন পার্টির মাইকেল ম্যাকটিমনি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কেভিন ব্রা।

নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর সবচেয়ে কমবয়সী এই কাউন্সিলরকে অভিনন্দন জানিয়েছেন স্থানীয় এমপি জেনি চাপম্যান ও এন্ড্রু গাইন। ব্রিটেনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রথম এমপি রোশনারা আলীর অভিনন্দন ও প্রশংসায় ভেসেছেন শরিফাহ।

অন্যদিকে, বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শিক্ষার্থী সেলিনা বেগম ব্রিটেনের সম্মানজনক বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়ে দেখিয়েছেন আরেক চমক।

১৬ বছর বয়সী সেলিনা বেগমের বাড়ি সিলেট জেলার দক্ষিণ সুরমা উপজেলাধীন মোগলা বাজারে।

তিনি লন্ডনের নিউহ্যাম কলেজিয়েট সিক্সথ ফর্ম সেন্টারের শিক্ষার্থী।

রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে আয়োজিত স্কুল বিতর্কে সেরা বিতার্কিক নির্বাচিত হয়েছেন সেলিনা। সেলিনা বেগম বিভিন্ন স্কুলের ২০০ প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে প্রথম স্থান অধিকার করে।

বিতর্কে জাঙ্ক ফুড, গোপনীয়তার অধিকার এবং যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুদণ্ড বিলোপের মতো বিষয়গুলোতে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন সেলিনা।

চলতি মাসের গোড়ার দিকে তিনি এই প্রতিষ্ঠান থেকে তিন সহপাঠীকে নিয়ে বিশ্বখ্যাত ইটন কলেজে আয়োজিত বার্ষিক বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। ভবিষ্যতে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে ইতিহাস নিয়ে পড়াশুনা করতে চান সেলিনা বেগম। সে লক্ষ্যে এখন থেকেই নিজেকে প্রস্তুত করছেন তিনি।