‘ঠেঙ্গারচরে রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসন করলে বাঘের মুখ থেকে সিংহের মুখে ঠেলে দেয়া হবে’

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


ফাইল ছবি

ঠেঙ্গারচরে রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসন করার সংবাদে গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম বলেছেন, জনমানবহীন ও বসবাসের অযোগ্য ঠেঙ্গারচরে পুনর্বাসনের সিদ্ধান্ত হবে রোহিঙ্গাদেরকে বাঘের মুখ থেকে নিয়ে সিংহের মুখে ঠেলে দেয়া। ঠেঙ্গারচরে রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসনের পরিকল্পনা থেকে বাংলাদেশ সরকারকে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

আজ এক বিবৃতিতে চরমোনাই পীর বলেন, ওই দীপটি শরণার্থীদের অন্য আশ্রয়শিবির থেকে অনেক দূরে। বন্যায় তা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে বিপদজনক। এই পরিস্থতিতে জনমানবহীন একটি দীপে রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসনের করা হবে চরম অমানবিক।

তিনি বলেন, মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের বাঁচতে দিতে হবে। তাদেরকে কোনক্রমেই মানবিক বিপর্যয়ের মুখে ঠেলে দেয়া উচিত হবে না।

চরমোনাই পীর বলেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়া বিষয়ে মিয়ানমার সরকারের সাথে যে চুক্তি করা হয়েছে তা আইওয়াশ মাত্র। অং সান সুচির সরকার এই চুক্তির পরও রোহিঙ্গা মুসলমানদের দেশত্যাগে বাধ্য করা হচ্ছে এবং অনেক মুসলমান হত্যা করছে। এভাবে ‘মুখ মে শাহ ফরিদ বোগল মে ইট’ সন্ত্রাসী মিয়ানমার সরকারের ভুমিকা বিশ্বমুসলিমকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। এমতাবস্থায় রোহিঙ্গা মুসলমানদের নাগরিক সকল সুবিধা নশ্চিত করে জাতিসংঘ শান্তি রক্সী বাহিনীর মাধ্যমে মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে হবে।