অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে রাজধানীজুড়ে হেলিকপ্টার টহল

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


ইংরেজী নববর্ষ উপলক্ষে রাজধানীজুড়ে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। নগরবাসীর নিরাপত্তায় বিভিন্নস্থানে মোতায়েন করা রয়েছে বিপুল পরিমাণ র‌্যাব ও পুলিশ।

এবার নিরাপত্তায় বাড়তি থাকছে ডিএমপির সোয়াট ও র‌্যাবের ডগ স্কোয়াড। সঙ্গে নগরজুড়ে র‌্যাবের হেলিকপ্টার টহল।

রোববার রাতে সরেজমিনে দেখা যায়, গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। তল্লাশি চৌকিতে তল্লাশির মাধ্যমে আবাসিক এলাকায় প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে। চেকপোস্টগুলোতে র‌্যাব পুলিশ ও আর্ম পুলিশ ব্যাটালিয়নের সদস্যরা কাজ করছেন। যেসব স্থানে গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠান হচ্ছে সেখান ডগ স্কোয়াড দিয়ে আগেই সুইপিং করা হচ্ছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে বোমা ডিসপোজাল ইউনিট।

ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষে নিরাপত্তায় আগেভাগেই কোনো উন্মুক্ত স্থানে বা বাড়ির ছাদে কোনো সমাবেশ, গান-বাজনা করা, আতশবাজি ফোটানো সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করার কথা জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার। রাত ৮টার মধ্যে গুলশান এলাকা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, গুলশান এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। প্রবেশ পথগুলোতে র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যদের উপস্থিতি লক্ষণীয়।

রোববার রাত ৯টার দিকে গুলশান-২ এলাকায় র‌্যাবের ডগস্কোয়াড সুইপিং করতে দেখা যায়। গুলশান-২ এর প্রত্যেকটি সড়কে যানবাহনে তল্লাশি করা হচ্ছে।

থার্টি ফার্স্টের নিরাপত্তা নিয়ে র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি অপারেশন) কর্নেল আনোয়ার লতিফ খান বলেন, এবার বিপুলসংখ্যক র‌্যাব সদস্য মোতায়েন থাকছে। কাজ করছে ডগস্কোয়াড। এবার নিরাপত্তা জোরদারের অংশ হিসেবে আকাশ পথে হেলিকপ্টার মোতায়েন করা হয়েছে। রাজধানীর গুলশান, ঢাবি এলাকা ও উত্তরাসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকা হেলিকপ্টার টহলে নজরদারি রাখা হচ্ছে।

হেলিকপ্টারে লাগানো হয়েছে উচ্চতর সোডিয়াম লাইট। নির্দিষ্ট স্থানে লাইট দিয়ে স্পষ্ট সব দেখা যাচ্ছে। রাত সাড়ে ৭টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত হেলিকপ্টার টইল চলবে।