খ্রিষ্টীয় নববর্ষ ও ইসলামী রাষ্ট্র চিন্তা

আরিফুল ইসলাম


নতুন বছর হল একটি চেতনার বিষয়। কোন চেতনা বর্তমান সমাজ বা রাষ্ট্র ব্যবস্থার বস সেটা নির্ধারন হয় এর মাধ্যমে। এই হিসাবে এক নাম্বারে আছে খ্রীষ্টীয় চেতনা। তাই খ্রিষ্টাব্দের আগমনে সর্বত্র এমন প্রান চাঞ্চল্য। এই নতুন বছরের সাথে যত না সংস্কৃতি জড়িয়ে আছে তার চেয়ে বেশী জড়িয়ে আছে অর্থনীতি। আর বস্তুবাদী দুনিয়ায় অর্থনীতি যে প্রান চাঞ্চল্য সৃষ্টি করতে পারে তা অন্য কিছুর মাধ্যমে সম্ভব হয় না। তাই বস্তুবাদ এবং আধুনিকতার মোড়কে পরিবেশন করা হচ্ছে খ্রীষ্টীয় প্রেরনা।

এরপর আলোচনা করা যায় বাংলা বর্ষ নিয়ে। এটা মূলত শতভাগ অর্থনীতি নির্ভর পঞ্জিকা। বাংলার কৃষিজীবি সম্প্রদায় থেকে খাজনা আদায় কিংবা মহাজনের সুদ কিংবা দোকানের বাকি আদায়ে অনুষ্ঠিত হালখাতার সংস্কৃতি সবই অর্থনীতির জন্য গড়ে ওঠা সংস্কৃতি। এটার স্থান মূলত জাদুঘরে। কিন্তু এই পঞ্জিকার আয়োজক সম্রাট আকবর আবার আমাদের গোড়া হিন্দুদের খুবই পছন্দের ব্যক্তি। তাই তার শোষনকেও তারা ভক্তিসহকারে পালন করার রেওয়াজ ধরে রাখতে সচেষ্ট।

সর্বশেষ আলোচনা করব হিজরী নববর্ষ নিয়ে। এটা হল মুসলমানদের রাষ্ট্র-ধর্মীয় পঞ্জিকা। প্রথম ইসলামী রাষ্ট্র কাঠামো গড়ে ওঠার ভিত্তিমূলক দিন হল রাসূল (সা) এর মক্কা থেকে মদীনায় আগমনের দিন। যার ফলে উমার (রা) এই দিনটি অনুসারে বর্ষ গননা শুরু করার রীতি চালু করেন। আমাদের কাছে আরবী মাসগুলো ধর্মীয় প্রয়োজনে গুরত্বপূর্ন হলেও, রাষ্ট্রীয় কাঠামো এবং অর্থনীতির প্রয়োজনে এই সনের গননা চালু না থাকায় এই সনের পরিবর্তনে সমাজ কিংবা রাষ্ট্রে কোন রকম প্রান চাঞ্চল্য পরিলক্ষিত হয় না।

নতুন বছরের থার্টি – ফার্স্ট নাইট উদযাপন হারাম ঘোষনাটি আক্ষরিক অর্থে সীমাবদ্ধ হয়েছে। অর্থাৎ ঐ দিন উদযাপনে নাচ- গান, আতশবাজী ইত্যাদী হারাম হিসাবে ফতোয়াটি নেওয়া হয়েছে। অথচ এই যে খিষ্ট্রীয় বর্ষ কনসপ্টের বিপরীত ইসলামী বর্ষ তথা হিজরী বর্ষ এটা আমাদের চিন্তা চেতনায় আসে না। এখানে দুই বর্ষ গননায় একটা যে যুদ্ধ সেই যুদ্ধের কথা আমরা বেমালুম ভুলে কেবল থার্টি ফাস্টের নাচ গানের দিকে আমাদের মনযোগ দিয়েছি। যার ফলে বহু দ্বীনদার ব্যক্তিও খ্রিষ্টীয় নতুন বছরের জন্য আল্লাহ তা’আলার কাছে দোয়া করে বছর শুরু করে। থার্টি ফার্স্ট নাইট আমাদের স্মরন করায় রাষ্ট্রীয় ভাবে ইসলামের অমর্যাদা, অর্থনৈতিক ভাবে ইসলামের অমর্যাদা। এই বিষয়গুলো নিয়ে আমাদের ভাবা উচিত বলেই মনে করি।

 


ফেসবুক থেকে


Notice: Undefined index: email in /home/insaf24cp/public_html/wp-content/plugins/simple-social-share/simple-social-share.php on line 74